প্রণাম রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

আমাদের নতুন সময় : 07/08/2019

অজয় দাশগুপ্ত

বাংলাদেশে জমিদারী করতে এসে রবীন্দ্রনাথ এক কাÐ ঘটিয়েছিলেন। তখনকার নিয়মমাফিক জমিদারের পরিচিতি সভায় কেবল উচ্চবংশীয় হিন্দু আর ব্রাহ্মণদের বসার অধিকারে ক্ষুব্ধ কবি সবাইকে ডাকার পরামর্শ দিলেও নায়েব শুনতে নারাজ। কিন্তু কবি তো নাছোড়বান্দা। তা না হলে তিনি সে অনুষ্ঠানে যাবেনই না, এমন জেদের পর হিন্দু-মুসলমান সবাই মেঝেতে গোল হয়ে বসেছিলো আর মাঝখানে রবীন্দ্রনাথ। আলখেল্লা আর গৈরিক সাজের রবীন্দ্রনাথকে দেখে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলো প্রজাকুল। সেসময় তিনি স্পষ্ট করে বলেছিলেন, সাহাদের হাত থেকে শেখদের বাঁচাতে হবে। (এখানে সাহা মানে হিন্দু জোতদার আর শেখ মানে দরিদ্র মুসলমান জনগোষ্ঠী)। এই রবীন্দ্রনাথ আজ অনালোচিত। এমন এক রবীন্দ্রনাথকে ছিঁড়ে খুঁড়ে তুলে আনা হচ্ছে যা বিকৃত ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। সকালে ঘুম ভাঙা থেকে জীবন, আনন্দ, বিরহ, মিলনে এমনকি মৃত্যুতেও বাঙালির এমন বন্ধু, এমন হিতৈষী আর কে আছেন? এতো রক্ত এতো অশান্তি এতো ক‚টবিতর্ক দেখে মনে হয়, তিনি নিজেই গেয়ে উঠবেন… সম্মুখে শান্তি পারাবার/ভাসাও তরণী হে কর্ণধার। প্রণাম রবীন্দ্রনাথ। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]