সব কথায় ধর্ম টেনে আনবেন না সমালোচনার জবাবে ইরফান পাঠান

আমাদের নতুন সময় : 07/08/2019

আক্তারুজ্জামান : ক্রিকেট মাঠে আর নামেন না ইরফান পাঠান। কিন্তু ক্রিকেটের সঙ্গ ত্যাগ করতে পারেননি। ক্রিকেট প্রশিক্ষণ দলের সঙ্গে অনেকদিন ধরেই কাশ্মীরে ছিলেন তিনি। কিন্তু গত সোমবার ভারতের সংসদে কাশ্মীর সংক্রান্ত একটি বিল তাদের সংবিধান থেকে বাদ দেয়ায় নতুন ঝামেলা শুরু হয়েছে দেশটিতে। যে ঝামেলায় জড়িয়েছেন ইরফান পাঠানও। একটি টুইট করার পর চারদিক থেকে তীব্র সমালোচনা শুনছিলেন সাবেক এ বাহাতি পেসার। পরে অবশ্য সমালোচনার জবাব দিয়ে পাল্টা টুইটও করেছেন তিনি।

এই পেস অলরাউন্ডার লিখেন, ‘আমার হৃদয় পড়ে রয়েছে কাশ্মীরে। ভারতীয় সেনাবাহিনী ও ভারতীয় কাশ্মীরি ভাই-বোনদের সঙ্গেই রয়েছে আমার হৃদয় ও মন।’ সেই টুইটে হ্যাশ ট্যাগ হিসেবে তিনি লিখেন, #কাশ্মীর #কাশ্মীরআন্ডারথ্রেট।

এই টুইটের পরেই বেশ কিছু টুইটার ব্যবহারকারীর সমালোচনার মুখে পড়তে হয় ইরফানকে। ৩৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারকে আক্রমণ করে এক ব্যবহারকারী লিখেন, ‘বড় বড় কথা বলে শেষে #কাশ্মীরআন্ডারথ্রেট লিখে নিজের জেহাদি মানসিকতাই বুঝিয়ে দিলেন ইরফান। কাশ্মীর ইজ নট আন্ডার থ্রেট। ইট ওয়াজ আন্ডার থ্রেট। এবারের স্বাধীনতা দিবসে কাশ্মীরের ওপর থেকে ৩৫ এ এবং ৩৭০ ধারা তুলে নেয়া হবে।’

সংবিধানের এইধারা অনুযায়ী, জম্মু ও কাশ্মীরের বাসিন্দারা বিশেষ মর্যাদার অধিকারী। এই আইনে ভারতের বাকি রাজ্যগুলোর বাসিন্দারা কাশ্মীরে বসবাস বা সম্পত্তি কিনতে পারবেন না।

এরপরের টুইটে পাঠান আবার লিখেন যে, ‘অমরনাথ যাত্রীদের চলে যেতে বলা হয়েছে এবং যাত্রা বন্ধ করতে বলা হয়েছে। এর অর্থই হল, কাশ্মীরে আতঙ্কের পরিবেশ। সেই কারণেই নিরাপত্তার জোড়দার করা হয়েছে। নিজের নোংরা চিন্তাভাবনা বদলান। সব কথায় ধর্মকে টেনে আনবেন না। সব কথায় প্রমাণ চাওয়া থেকেও বিরত থাকুন। এটাই আপনাদের জন্য মানসিক শান্তি বয়ে আনবে।’

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]