• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » সরকার মনিটর করলে অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধ হবে, বললেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম


সরকার মনিটর করলে অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধ হবে, বললেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম

আমাদের নতুন সময় : 07/08/2019

জান্নাতুল পান্না : দেশে অপ্রোজনীয় সিজার বেড়ে গেছে। অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধে সরকারকে নীতিমালা প্রণয়ন করে একটি মনিটরিং টিম তৈরি করার পরামর্শ দিয়েছেন ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম। তিনি জানিয়েছেন, একান্ত প্রয়োজনে অবশ্যই সিজারের পক্ষে। কিন্তু অপ্রয়োজনীয় সিজারের পক্ষে নই। আর এ কারণেই বিষয়টি আদালতে তুলে ধরেছি।
বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে ১৫ শতাংশের বেশী সিজার করা যাবে না। সেখানে বাংলাদেশে ৩১ শতাংশ নারীর সিজার করা হয়। যা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি।
ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম এ প্রতিবেদককে আরো জানান, দেশে বেসরকারিভাবে ৮৩ শতাংশ, সরকারিভাবে ৩৫ শতাংশ ও এনজিওর মাধ্যমে ৩৯ শতাংশ নারীর সিজার করা হয়। যা গর্ভবতী নারীদের জন্যে হুমকিস্বরুপ। সরকার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে হাসপাতালগুলোতে মনিটর করতে পারে। কোন হাসপাতালে কতো সিজার হয়েছে এমন তথ্য যদি প্রতি মাসে সংরক্ষণ, প্রসূতি মায়েদের কি কারণে সিজার হচ্ছে বিস্তারিত তথ্য নেয়া হয়, তাহলে ডাক্তাররা কিছুটা হলেও ভয় পাবেন। তাতে অপ্রয়োজনীয় সিজার বন্ধ হবে। এ বিষয়ে সর্বস্তরের মানুষের সচেতনতা বাড়াতে হবে।
ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম আরো জানান, অপ্রয়োজনীয় সিজারে শুধু নারী ও শিশুদের উপর প্রভাব পড়ছে। এক্ষেত্রে আদালতের আদেশ নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় মাইলফলক। এ আদেশে নারী ও শিশুরা ভবিষ্যতে উপকৃত হবে এতে কোনো সন্দেহ নেই।
গত ২১ জুন বিবিসি বাংলায় প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ‘সেভ দ্য চিলড্রেন’ বলছে বাংলাদেশে গত দুই বছরে শিশু জন্মের ক্ষেত্রে সিজারিয়নের হার বেড়েছে ৫১ শতাংশ। বিষয়টিকে অপ্রয়োজনীয় উল্লেখ করে সংস্থাটি বলছে, এতে বাবা-মায়েদের সন্তান জন্মদানে ব্যাপক পরিমাণে খরচের ভার বহন করতে হচ্ছে। এ বিষয়ে বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনযুক্ত করে বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট এ রিট দায়ের করেন।
জনস্বার্থে করা মামলায় ব্যারিস্টার রাশনা ইমাম আইনজীবী হিসাবে কাজ করছেন। তার টিমে রয়েছেন অ্যাডভোকেট গুলশান জুবাইদা, ব্যারিস্টার মুনিজা কবির, ব্যারিস্টার ফারিয়া আহমেদ। ব্লাস্ট এর সহযোগিতায় তারা এই রিট মামলাটি পরিচালনা করছেন। তবে ব্যারিটার রাশনা ফি নিচ্ছেন না বলে জানান। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]