বিচারপতিসহ সাংবিধানিক পদধারীদের আগের মতই প্রটোকল দেয়ার নির্দেশ

আমাদের নতুন সময় : 08/08/2019

নূর মোহাম্মদ : সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিসহ সাংবিধানিক পদধারী ব্যক্তিদের রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদা ক্রম ও আইন অনুযায়ী আগের মত প্রটোকল দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। তথ্য সচিব, বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলসহ জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারদের এ নির্দেশ দেয়া হয়ছে। আর অবিলম্বে আদেশের অনুলিপি সকল জেলা জজদের কাছে বিতরণ করতে বলেছেন আদালত। এছাড়া মন্ত্রিপরিষদ সচিব এবং জনপ্রশাসন সচিবের কাছেও পাঠাতে বলা হয়েছে। এ সংক্রান্ত রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে গতকাল বুধবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

একইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের বিষয়ে সংবাদ প্রকাশের ক্ষেত্রে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক থাকতে বলেছেন আদালত। আদালত বলেন, রাষ্ট্র ও সমাজের মুখপাত্র হিসেবে আমরা সাংবাদিকদের কাছ থেকে আরও দায়িত্বশীলতা প্রত্যশা করি।
আদালত বলেন, আমরা (আদালত) মামলা বোঝার জন্য কিছু কথা বলি, কখনও তা বিষয় বস্তুর বাইরে যেয়েও বলা হয়। আমরাও ভুল-ভ্রান্তির ঊর্ধ্বে না। এতে কখনও কখনও সুনির্দিষ্টভাবে চিন্তার প্রকাশ নাও হতে পারে। আমরা যা বোঝাতে চাই, সেই বার্তা কেউ কেউ বুঝতে ভুল করেন। তাই আদালতের রায় প্রকাশ পর্যন্ত অপেক্ষা না করে শুনানিকালে করা মন্তব্যকে চূড়ান্ত হিসেবে ধরে নেওয়াটা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। একারণে প্রকৃত সত্য জানতে রায় প্রকাশ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করাই শ্রেয়।
এর আগে গত ৩১ জুলাই রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নন, হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের এমন মন্তব্যকে কিছু গণমাধ্যমে আদালতের আদেশ বলে প্রচার করা হয়। এতে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। এমনকি সাংবিধানিক পদধারী ব্যক্তিদের প্রটোকল দেয়ার ক্ষেত্রেও দ্বিধা-দ্বন্দে পড়েন সংশ্লিষ্টরা। পরে বিষয়টি নিয়ে রিট করেন আইনজীবী শাহিনুর রহমান। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট একরামুল হক টুটুল।
আদেশের পর টুটুল বলেন, কিছু সংবাদমাধ্যম প্রটোকল নিয়ে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চকে মিসকোট করে সংবাদ প্রচার করেছে। পরে একজন বিচারপতির সফর নিয়েও বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রকাশ করা হযেছে। এতে সুপ্রিম কোর্ট এবং সাংবিধানিক পদাধিকারীর মর্যাদা ক্ষুণœ করা হয়েছে।
এর আগে সরকারের একজন যুগ্ম সচিবের অপেক্ষায় কাঁঠালবাড়ি ঘাটে তিন ঘণ্টা ফেরি আটকে রাখায় গত ২৫ জুলাই তিতাস ঘোষ নামের এক স্কুলছাত্র অ্যাম্বুলেন্সেই মারা যায়। এরপর গত ৩১ জুলাই তিতাসের পরিবারের জন্য ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিটের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট বিষয়টি তদন্তের নির্দেশ দেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]