• প্রচ্ছদ » টুকরো খবর » ময়লা আবর্জনা যেখানে সেখানে না ফেলে মাটিচাপা দিন, বললেন ডা. অধ্যাপক আবদুল্লাহ আহম্মেদ


ময়লা আবর্জনা যেখানে সেখানে না ফেলে মাটিচাপা দিন, বললেন ডা. অধ্যাপক আবদুল্লাহ আহম্মেদ

আমাদের নতুন সময় : 08/08/2019

শাহীন খন্দকার : সামনে পবিত্র ঈদুল আজহা। কোরবানির ঈদ। দেশজুড়ে চলেছে আতঙ্ক। আর একারণেই এই ছুটির সময়ে নিজের বাড়ির আঙিনাসহ চারিপাশ পরিস্কার রাখুন। কোরবানির পশুর বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, মাংস কাটাকাটির চারিপাশের পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা ও জরুরি। কেননা দেশের বেশির ভাগ মানুষই তাদের বাড়ির আঙিনায় কিংবা রাস্তার দ্বারে কোরবানির গরু ছাগল জবাই দেয়। মাংস কাটাকাটির কাজটাও করে থাকেন।
কোরবানীর পশু প্রতি পালন, হাটের বর্জ্য থেকে শুরু করে সব রকমের বর্জ্য যথাযথ সময়ের মধ্যে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা প্রয়োজন। পরিস্কার পরিচ্ছন্নতায় কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি সবাইকে দায়িত্ব পালন করতে হবে।
বৃষ্টির দিনে কোরবানির আবর্জনা এখানে সেখানে ফেলে রাখলে ময়লা জমে দূর্গন্ধ বের হয়ে পরিবেশে দূষিত করে জীবাণু ছড়াতে পারে। এসব ক্ষেত্রে সর্তক থাকতে হবে।
কারণ বৃষ্টি ও বন্যা মৌসুমের এই সময়ে এডিস মশার প্রভাব বেশি। ফলে এখন ডেঙ্গু জ্বর ছড়িয়ে পড়েছে। তবে এডিস মশা ময়লা আর্বজনায় ডিম পাড়ে না। এরা স্বচ্ছ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন স্থানে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশি। ঢাকা মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা: আবদুল্লাহ আহম্মেদ বললেন, কোথায় কোরবানি দেয়া হবে, কোরবানি দেয়ার পর রক্তসহ অন্যান্য বর্জ্য কিভাবে সরানো হবে, সেই পরিকল্পনা আগে থেকেই করতে হবে। কোরবানির পরপরই রক্ত ধুইয়ে ব্লিচিং পাউডার ছিটাতে হবে। বর্জ্য আর্বজনা মাটিতে পুঁতে ফেলতে হবে এবং মাংস কাটাকাটির পাত্র দাড়ি আগুনে পুড়িয়ে ফেলতে হবে। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]