• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » ২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ হবে, বললেন সাঈদ খোকন


২৪ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ হবে, বললেন সাঈদ খোকন

আমাদের নতুন সময় : 08/08/2019

সুজিৎ নন্দী : ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, কোরবানির পশুর বর্জ্য ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অপসারণ করা হবে। এজন্য প্রতিটি ওয়ার্ডে কমপক্ষে ৫টি জায়গায় পশু কোরবানির জন্য নির্ধারিত স্থান রয়েছে। ডিএসসিসি এলাকায় সর্বমোট ৩৩৯টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। সেখানে প্যান্ডেল, পানি, ইমাম সাহেবসহ যাবতীয় ব্যবস্থা রাখা হবে। আপনারা অনুগ্রহ করে সেখানে পশু কোরবানি করবেন। যদি কোনো কারণে সম্ভব না হয়, তাহলে যেখানেই কোরবানি করবেন সেখানে পানি ঢেলে পরিষ্কার করবেন কিংবা রক্ত জমতে দেবেন না। গতকাল বুধবার ডিএসসিসির নগর ভবনে কোরবানির বর্জ্য দ্রুত ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে দিক নির্দেশনামূলক সভায় উপস্থিত পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের মেয়র এ নির্দেশ দেন।

কর্মীদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, গত বছরের ঈদে আমরা ২৪ ঘণ্টায় কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে সফল হয়েছিলাম। আমরা এবারও প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ করবো।

তিনি বলেন, পশুর রক্ত পানি দিয়ে ধুয়ে সেখানে ব্লিচিং পাউডার দিয়ে দিতে হবে। এছাড়াও সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে সবাইকে বড় ব্যাগ দেয়া হবে। সেই ব্যাগে বর্জ্য ঢুকিয়ে নির্ধারিত স্থানে রাখবেন। আমাদের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা গিয়ে বর্জ্য সংগ্রহ করে নিয়ে আসবে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে ডেঙ্গু পরিস্থিতি অত্যন্ত সংকটাপন্ন। যদি কোরবানির বর্জ্য, পানি, রক্ত ইত্যাদি অপসারণ না করা হয়, তাহলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে। মেয়র খোকন বলেন, কারও এলাকায় যদি বর্জ্য থেকে যায়, তাহলে আমাদের হটলাইনে (০৯৬১১০০০৯৯৯) ফোন দেবেন। হটলাইনে অপারেটররা আপনার বাসাবাড়ি কিংবা এলাকায় পরিচ্ছন্নতাকর্মী পাঠিয়ে দেবেন। এছাড়াও বর্জ্য অপসারণের সার্বিক কাজ ফেসবুকে তদারকি করা হবে। সভায় ডিএসসিসির কর্মচারী-কর্মকর্তাসহ সব ওয়ার্ডে পুরুষ ও মহিলা পরিচ্ছন্নকর্মী এবং পরিবহন চালকরা উপস্থিত ছিলেন।

সম্পাদনা : ইসমাঈল ইমু, আবদুল অদুদ

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]