• প্রচ্ছদ » » বিএনপি কি কোনো আঞ্চলিক, আন্তর্জাতিক শক্তি বা পক্ষ?


বিএনপি কি কোনো আঞ্চলিক, আন্তর্জাতিক শক্তি বা পক্ষ?

আমাদের নতুন সময় : 10/08/2019

মেজর (অব.) মো. আখতারুজ্জামান

বিএনপির নীরবতা আপনাদের মনোযোগ আকর্ষণ করছে, যা খুবই স্বাভাবিক। বিএনপি অবশ্যই নীরব এবং যথার্থ কারণেই নীরব। এই নীরবতার কারণ অনুধাবন করতে হলে কতোগুলো প্রশ্নের জবাব খুঁজতে হবে। তাই এখন প্রশ্ন হচ্ছে বিএনপির রাজনৈতিক দর্শন কি? বিএনপি কি কোনো আঞ্চলিক, আন্তর্জাতিক শক্তি বা পক্ষ? অন্য দেশের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে বিএনপি কি দর্শন অনুসরণ করে? বিএনপি অন্য কোনো রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কথা বলার দর্শন অনুসরণ করে কিনা? বিএনপি কি ধর্মীয় রাজনীতির অনুসারী? বিএনপি কি বিশ্বব্যাপী ঐক্যবদ্ধ ইসলামিক রাষ্ট্র ব্যবস্থায় বিশ্বাসী? বিএনপি কি ইসলামিক ঐক্যতার রাজনৈতিক আদর্শতে বিশ্বাসী? এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গেলে খুব সহজেই বোঝা যাবে যে বিএনপি যথার্থভাবেই নীরবতা পালন করে আসছে।
আমাদের মনে রাখতে হবে কাশ্মীরের মতো সমস্যা বাংলাদেশের পার্বত্য চট্টগ্রামে আছে… সেখানে আমাদের নীতি কী? তাছাড়া বিএনপি কোনো রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলানোতে বিশ্বাস করে না, যা খুবই স্পষ্ট। বিএনপি তার সব প্রতিবেশীর সঙ্গে শান্তিপূর্ণ অবস্থানে বিশ্বাস করে। বিএনপি অন্য রাষ্ট্রের সংঘাতে কারও পক্ষ নেয় না। সব আন্তর্জাতিক সংঘাতে বিএনপি জাতিসংঘের কর্তৃত্ব ও মানবাধিকার সনদে বিশ্বাস করে। বিএনপি তাই ইরাক, লিবিয়া, আফগানিস্তান, ইরান, চীনের উইঘুর, তুরস্ক, কাতার, ইয়েমেন, মিসর বা কুর্দিস্তানের নির্যাতিত মজলুম মুসলমানদের পক্ষেও নীরবতা অবলম্বন করে আসছে। তাই একই যুক্তিতে এবং দৃষ্টিভঙ্গি ও বাস্তবতা থেকেই বিএনপি ভারতের কাশ্মীর বিষয়েও নীরব আছে। নীরবতাই স্পষ্ট করে বিএনপি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কথা বলা পছন্দ করে না এবং একইসঙ্গে ভারত সরকারকেও জানিয়ে দেয়া ভারতের জনগণের উপর বা কোনো সংখ্যালগিষ্ঠের উপর অত্যাচার, অনাচার, অবিচার বা নির্যাতন করলে বিএনপি নীরব থাকবে না। বিএনপির নীরবতা কাশ্মীরবাসীকে পূর্ণ সমর্থন দেয় যে তাদের সব বৈধ ও আইনানুগ দাবি আদায়ের সংগ্রামে বিএনপি ভারতবাসী তথা কাশ্মীরিদের পাশে থাকবে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]