নরকের প্রহরী

আমাদের নতুন সময় : 11/08/2019

সিফাত বিনতে ওয়াহিদ

নরকের প্রহরীর খুব ঘুম প্রয়োজন, অথচ এইমাত্র ইজরাইলি বোমা হামলায় নিহত প্যালেস্টাইন শিশু এজলার প্রবেশ ঘটেছে বেহেশতে, আগুনে উড়ে যাওয়া এজলার বিকৃত মুখশ্রীতে ব্যাহত হচ্ছে বেহেশতবাসীদের নিরবচ্ছিন্ন ঘুম। ওদিকে এজলার প্ল্যাস্টিক সার্জারির অর্থ যোগানে নরকের সবচেয়ে নারকীয় টর্চার সেলে বিশেষ চ্যারিটি শোয়ের আয়োজন করেছে নরকবাসীগণ। নরকে এখন শীথের মৌসুম। মাইনাস ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাতে এর আকাশ থেকে বরফের বদলে আগুনের ফুলকি ঝরে পড়ছে। আগুন গায়ে মেখে, দরোজায় হেলান দেয়া ঢুলুঢুলু চোখের প্রহরী একটি মাত্র লাইনই শুনে যাচ্ছে র্যাঁবোর বজ্রকণ্ঠে, “আমি যেন সস্তা বিজ্ঞাপন এক সরাইখানার’।
“নরকের সরাইখানা হামেশাই কবিদের হট্টগোলে ভরপুর থাকে”-বিরক্তিকর এই চিন্তা মাথায় আসতেই বিশ্রীরকম এক হাই তুলে ঘুমের সুযোগ খুঁজতে চায় অতীত পৃথিবীর ভয়ানক পাপী, নরক-প্রহরী। কিন্তু একেকটা ঢাউস মশার বিষাক্ত কামড়ে তার সমস্ত শরীর জুড়ে ঝরতে থাকা রক্তপুঁজের প্রতি ফোটায় কিলবিল করে জন্মাতে থাকে অসংখ্য টিকটিকি সদৃশ জীব। বিশালদেহী প্রহরীর সারা শরীর বেয়ে হেঁটে বেড়ানো এই ঘিনঘিনে প্রাণীগুলো জন্মের পরমুহূর্ত থেকেই চেটে খেতে থাকে রক্তপুঁজের আপন জন্মদাগ, এইসব হাঁটাহাঁটিতে বিচলিত না হয়ে প্রহরীর চোখ বরং বুজে আসে নারকীয় চাঁদের অনাকর্ষণীয় ছায়ায়। ঘুমের সময়সীমা পার হয়ে আসার দুশ্চিন্তায় মশা মারতে বিরাট এক কামান দাগাতে গিয়ে টর্চার সেল থেকে ভেসে আসা গিটারের উন্মাদ রিদমে
খানিকটা অনিচ্ছাকৃতভাবেই কান পাততে হয় তাকে। সমস্ত শরীর জুড়ে টিকটিকিসদৃশ প্রাণীর ঘিনেঘিনে কিলিবিলি উপেক্ষা করে নরকের একমাত্র বিশ্বাসী প্রহরীর মস্তিষ্কে মাতম তুলতে থাকে চ্যারিটি শোয়ে বাজতে থাকা এক জাদুকরী লিরিক-“আই উইল গেট ইউ সুন/আই’ম দ্য লিজার্ড কিং/আই ক্যান ডু এনিথিং।” কামানে গোলা ভরার কথা ভুলে গিয়ে তীব্র ঘৃণায় প্রহরী থুতু ছুঁড়ে মারে বৃষ্টিস্নাত নরকের আকাশের বুকে, সিঁদুররঙা এক বিদ্যুৎ আচমকাই মেঘ ভেদ করে চমকে ওঠে সমস্ত আকাশে; কিন্তু খুব একটা উপরে পৌঁছুতে পারে না প্রহরীর ছুঁড়ে মারা থুতু ক্ষিপ্র গতিতে টিকটিকির মূত্রস্রাব পরিমাণ একবিন্দু জলের মতোই তা ফিরে আসে প্রেরকের ঘৃণাতুর চোখে। পার্থিব বিষয়াদির মতো অস্থায়ী নয় বেহেশত অথবা নরকের যাবতীয় বিষয়, বৃথাই যন্ত্রণাময় এই দায়িত্ব থেকে ইস্তাফা দেয়ার ভাবনায় ডুবতে গিয়ে হঠাৎই পৃথিবীর জন্য ভয়ানক মায়ায় ঘুম ভেঙে যায় তার, পেছনে তখনো সাউন্ডবক্সের প্রকাÐ বিটের শব্দ বেজে চলছে আরো বেশি উন্মাদনায়…শরীরে কিলবিল করতে থাকা প্রাণীগুলো ক্ষতস্থানের রক্তপুঁজ খেয়ে বিরাটকার ধারণ করেছে ইতিমধ্যেই, অজগরের মতো সমস্ত শরীর পেঁচিয়ে একেকটা প্রকাÐ হা’য়ে তারা গিলে ফেলছে নরকের বহু কাক্সিক্ষত ঘুমের আবেশ। এদিকে ঘুম ভেঙে যাওয়ায় প্রচÐ ক্ষোভে নরকের বাতাস জুড়ে হাহাকার তুলছে ঘুমহীন অতৃপ্ত প্রহরীর তীব্র শ্লেষোক্তি, পূর্ব জীবনের ইনসমনিয়ার স্মৃতি মনে পড়তেই নরকের পাগলা ঘণ্টার রশি ক্রমাগত টেনে উন্মাদের মতো সে চিৎকার করতে থাকেজ- “ওহ মরিসন! ইউ মাদারফাকার! হোয়াই আর ইউ মেকিং মাই সিøপ ইনটু ফাকিং হেল দ্যান ইট ইউজড টু বি অন আর্থ?” নরকের সবগুলো ঘুমকাতুরে কণ্ঠ প্রহরীর এ-চিৎকারে সমব্যথী হয়ে আরো বেশি কর্কশবাবে কোরাস গেয়ে ওঠে- “ফাদার, আই ওয়ান্ট টু কিল ইউ!”“মাদার, আই ওয়ান্ট টু…”“ইয়েহ…কাম অন বেবি…!”




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]