বন্যায় বিপর্যস্ত কেরালাসহ ভারতের ৭ রাজ্য, মৃত শতাধিক

আমাদের নতুন সময় : 11/08/2019

লিহান লিমা : প্রবল বর্ষণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় ভারতের কেরালা, কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র, গুজরাট, গোয়া ও উড়িষ্যাসহ সাতটি রাজ্যে প্রায় শতাধিক মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এর মধ্যে কেরালায় ৩৫, মহারাষ্ট্রে ২৮ ও কর্ণাটকে ৭১ ও তামিলনাডুতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। লাখো মানুষ গৃহহারা হয়ে ত্রাণ শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন। ওয়ান ইন্ডিয়া, ইয়ন, টাইমস অব ইন্ডিয়া।
বন্যায় সবচেয়ে ক্ষতি হয়েছে কেরালার। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় প্রায় ৭৩৮টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। একাধিক জায়গায় নেমেছে ধস। এমন পরিস্থিতির মধ্যেও আবহাওয়া দপ্তর সেখানে ভারী বর্ষণের পূর্বাভাস দিয়েছে। ফলে রাজ্যজুড়ে জারি হয়েছে রেড অ্যালার্ট।
কর্ণাটকের দুর্যোগ মোকাবিলা দপ্তর প্রায় ২ লাখ ৭ হাজারেরও বেশি মানুষকে স্থানান্তরিত করেছে। প্রায় ১১ হাজার বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর উপর আবার রয়েছে ডেঙ্গুর আতঙ্ক। কর্ণাটকের প্রায় ৬৫০টি গ্রামে ডেঙ্গু আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে।
মহারাষ্ট্রে প্রায় ২ লাখ ৮৫ হাজার মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন। বন্যা কবলিত পশ্চিম মহারাষ্ট্রের পাঁচটি জেলা। এর মধ্যে কোলাপুর ও সাংগিলে গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত চলছে। বৃষ্টির কারণে মুম্বাই-বেঙ্গালুরু জাতীয় সড়কের যান চলাচল বন্ধ। হাইওয়েতে অচল হয়ে রয়েছে প্রায় ১৮ হাজার গাড়ি। প্রায় ১ লাখ ৩৪ হাজার জনকে অস্থায়ীভাবে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। এখনও বিভিন্ন এলাকায় উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে প্রায় ৩৪টি উদ্ধারকারী দল। উড়িষ্যাতে প্রায় ১.৩ লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছেন। তিন জেলা এখন বন্যার পানিতে ভাসছে। প্রায় ১৪ হাজার মানুষকে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। তামিলনাডুতে বন্যাকবলিত মানুষকে উদ্ধার করতে প্রায় ৪৯১ জন উদ্ধারকারীকে পাঠানো হয়েছে। ৩৬টি মেডিক্যাল টিম ও ৩০টি অ্যাম্বুল্যান্স পাঠানো হয়েছে। অন্ধ্রপ্রদেশের অবস্থাও তামিলনাডুর মতোই। গুজরাটে ভেঙে পডেেছ একটি বহুতল ভবন। গোয়ায় অবশ্য বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে শুরু করেছে। উদ্ধারকাজ চলছে মধ্যপ্রদেশেও। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]