মাশরাফি কথা রেখেছেন

আমাদের নতুন সময় : 11/08/2019

রাশেদা রওনক খান

ছেলেটি কথা রেখেছে…। … ড. রেজাউল করিম স্যার আমায় ইনবক্স করলেন, ‘ঈড়হমৎধঃঁষধঃরড়হং পড়সৎধফব, ুবং ঃড়ফধু ও মড়ঃ ঃযব ড়ৎফবৎ.’ আমি সেকেন্ডেই বুঝে গেলাম, মায়াবী ছেলেটি কথা রেখেছে… কিচ্ছু বলার নেই, ছেলেটির জন্য ভালোবাসা ও দোয়া রইলো। মাঝে কিছুটা হতাশ হয়ে পড়েছিলেন দেশের এই বিশিষ্ট ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ। অমুক মন্ত্রী তার বদলির সিদ্ধান্তে অনড় ডেইলি স্টারের এমন নিউজ লিঙ্ক আমাকে পাঠিয়ে বললেন, অনেকেই তাকে কানাডা চলে যেতে বলতেছে। কথাটা কানে ভাসতে থাকে, মনে মনে ভাবী, আপনাদের মতো মানুষগুলোকে অন্যান্য দেশে রাষ্ট্র কীভাবে সম্মান করে, তা যদি দেখাতে পারতাম। আবার আমরাও নিজেদের সম্পদ ফেলে ভারতীয়/সিঙ্গাপুরি ডাক্তারদের কি খাতির যতœটাই না করি। আহারে দুঃখিনী দেশ আমার। তবুও সঙ্গে সঙ্গেই লিখলাম স্যারকে, ‘মাশরাফি আমাকে কথা দিয়েছে, তিনি দেখবেন বিষয়টি। আর দেশ ছেড়ে চলে যাবেন, এটা আমাদের পরাজয় হবে।’ মনের মাঝে একটা অনুভব কাজ করছে যে, মাশরাফির মাঝে একধরনের দেশপ্রেম বোধ আছে, তাকে সৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কেউ কিছু বোঝালে সেই বিষয়টি তার শরীরের শেষ বিন্দু দিয়ে হলেও সে করবে। দেশপ্রেমিক কোনো মানুষকে নিয়ে আমার বিশ্বাসের জায়গাটা এমনই। তাই অপেক্ষা করছিলাম, মাশরাফির চেষ্টার শেষটা দেখার জন্য।
ড. রেজাউল করিম স্যার প্রায় সময়ই আমাকে বার্তায় জানাচ্ছেন, মাশরাফি চেষ্টা করছে, কোথাও যেন ফাইলটায় লাল ফিতার গিট খুলছে না, আবার একটু হতাশ হয়ে পড়েন তিনি, খুব স্বাভাবিক। আমিও একটু মাঝে হতাশ হয়ে পড়েছিলাম যখন দেখছিলাম, মাশরাফিকেও দুই/পাঁচ বোঝানোর/বদলির আদেশটা ঝুলিয়ে রাখার চক্রান্ত হচ্ছে। কিন্তু ড. রেজাউল করিমকে বুঝতে দিইনি, তাকে বলে যাই, আপনি হতাশ হবেন না। ক’দিন আগে দেখি তার ফেসবুক ফবধপঃরাধঃব করা, সঙ্গে সঙ্গে ভয় পেয়ে যাই, আমার ভাই ড. আরিফ মুরশেদ খানকে জানালাম। শুনলাম তিনি খুব হতাশ। আমি কি বলবো বুঝতে পারি না, কিন্তু আমার আস্থা মাশরাফির উপর বিশাল। অপেক্ষা করতে থাকি, আমার বিশ্বাস মাশরাফি পারবে। আমি জানি, মাশরাফি কার/কাদের বিরুদ্ধে গিয়ে কাজটি করছে, বুঝতে পারছি নানাভাবে তাকে বোঝানোর চেষ্টা করা হবে যে ডাক্তার সমাজের বিরুদ্ধে একটা ‘ঁহরয়ঁব ধিু ড়ভ ধিৎহরহম’/ ‘ঈড়ংঃষু ডধৎহরহম’ দরকার । কিন্তু তারা এইটা বোঝেনি, ছেলেটা মাশরাফি, ও যা বোঝার বুঝে গেছে, আর কোনো অপশক্তি তাকে ভুল বোঝাতে পারবে না। অসৎ, ক্ষমতাধর, ধান্ধাবাজদের বিরুদ্ধে মাশরাফি জিতবে না, এ হতেই পারে না। আমি অপেক্ষা করেছি এই একমাস, ১ জুলাই বিকালে তার সঙ্গে আমার কথা হয়। শুনেছি, ২ জুলাই তিনি বার্মিংহাম থাকলেও তার লোক চলে গেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে এই বিষয়ে কথা বলতে। তখনি বুঝেছিলাম, বদলির আদেশ স্থগিত হবে কিন্তু হয়নি, লেগেছে এক মাস। ড. রেজাউল করিমের কাছ থেকেই আপডেট পাচ্ছিলাম প্রায়শই। কাল ছিলো ৮ আগাস্ট! আহা… দেশ! কীভাবে অসৎ মানুষজন ঘিরে আছে চারদিক দিয়ে। যার নাম বিক্রি করে শাস্তি, তিনি সেই শাস্তি হোক চাচ্ছে না এবং ফিরিয়ে নিতে একমাস চলে গেলো। রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি আর ধান্দাবাজি, এই থেকে মুক্ত হবার একটাই উপায়, তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো।
ঈদের আগের দিন এমন একটা খবর শুনে সত্যই ভালো লাগছে। আবারও কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা আমাদের প্রিয় মাশরাফির প্রতি। আর ধন্যবাদ রেজাউল করিম স্যারকে আপনার মতো বড় মাপের ডাক্তাররা এতোসব জটিলতার মাঝেও আমাদের ক্যান্সারে আক্রান্ত শিশুদের বাঁচিয়ে তুলতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন বলে, সবচেয়ে বড় কথা, এই ভয়াবহ বিপদের মাঝেও আশপাশের মানুষজনের উপর আস্থা রাখার জন্য ও নিজের উপর বিশ্বাস না হারিয়ে ফেলার জন্য। জয় হবেই, আমরাই করবো জয় একদিন। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]