• প্রচ্ছদ » সাবলিড » ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরছে মানুষ, তৃতীয় দিনেও  ছেড়ে যাচ্ছে অনেকে, ঢাকা ফাঁকা


ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরছে মানুষ, তৃতীয় দিনেও  ছেড়ে যাচ্ছে অনেকে, ঢাকা ফাঁকা

আমাদের নতুন সময় : 15/08/2019

শাহীন খন্দকার : ঈদুল আজহার তিনদিনের ছুটি কাটিয়ে নগরবাসীর অনেকেই গ্রাম থেকে ফিরলেও এখনও ছুটির আমেজে রাজধানী ঢাকা। গত দুদিনের মতো গতকাল বুধবার নগরীর বিভিন্ন রাস্তাঘাট প্রায় জনশূন্য। যানবাহনের সংখ্যাও কম। ঈদের ছুটি শেষে গতকাল সরকারি অফিস-আদালত খুললেও উপস্থিতির সংখ্যা ছিল খুবই কম। অনেকেই ঝামেলা এড়াতে গতকাল বুধবার আগেভাগে ফিরে এসেছেন। আবার এখনও অনেকে ঢাকা ছেড়ে যাচ্ছেন। যারা ঢাকায় কোরবানি দিয়েছেন তারা গ্রামের স্বজনদের জন্য মাংস নিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে, গতকাল সকাল থেকেই ঢাকার রাস্তায় গণপরিবহনের সংখ্যা কিছুটা বেড়েছে। সঙ্গে রিকশা, সিএনজি অটোরিকশা ও উবার-পাঠাওয়ের মতো রাইডশেয়ার প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিবহনও চোখে পড়লেও রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে রিকশা-অটোরিকশা চালকরা দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করেও যাত্রীদের দেখা পাচ্ছেন না। গত দু’দিন বাস স্টপেজগুলোতে কিছু যাত্রী থাকলেও গতকাল বুধবার সকাল থেকে থেমে থেমে বৃষ্টির কারণে যাত্রীর সংখ্যা একেবারেই শূন্যের কোঠায়। যাত্রী না পেয়ে বেশিরভাগ বাস গন্তব্যে ছুটছে।

অনেকেই ঐচ্ছিক ছুটি কাটাচ্ছেন। কারণ আগামীকাল ১৫ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) জাতীয় শোক দিবসের সরকারি ছুটি। এরপর আবার দু’দিন (শুক্র ও শনিবার) সাপ্তাহিক ছুটি। ফলে আজ একদিনের ছুটি নিয়ে অনেকেই  দেশের বাড়ি রয়ে গেছেন।

দুপুর ১টার দিকে রাজধানীর নীলক্ষেত মোড়ে পেট্রল পাম্পে অকটেন নিতে এসেছেন রাজধানীর ধানমন্ডি বাসিন্দা খলিলুর রহমান তবে পাম্পের  প্রবেশ মুখে দেখতে পান পেট্রল, অকটেন ও ডিজেল কোনোটাই বিক্রি হচ্ছে না। নীলক্ষেত মোড়ে দু’পাশে মার্কেটে নতুন-পুরনো বই, ফটোকপিয়ার মেশিন, বিরিয়ানি, ওষুধ ও ফাস্টফুডের দোকান স্বাভাবিক সময়ে অসংখ্য ক্রেতার উপস্থিতিতে জমজমাট থাকলেও সর্বসাকুল্যে দু-চারটি দোকান খোলা ছিল।

কাঁঠালবাড়ি লঞ্চঘাট সূত্র জানায়, মঙ্গলবার বৈরী আবহাওয়ার কারণে বন্ধ ছিল লঞ্চ ও স্পিডবোট চলাচল। তবে বুধবার লঞ্চ চলাচল স্বাভাবিক থাকায় ঘাটে যাত্রীদের ভিড় রয়েছে। এদিকে, বুধবার সকাল থেকে গুঁড়ি  গুঁড়ি বৃষ্টি থাকায় যাত্রীরা স্পিডবোটের পরিবর্তে লঞ্চ ও ফেরিতে পার হচ্ছে। সেই সঙ্গে রয়েছে দুর্ভোগও।

মধুখালীগামী যাত্রী  লিখন অদুদ বলেন, ঈদের সময় বাড়ি যেতে পারিনি। তাই এখন যাচ্ছি। কয়েকদিন থাকবো। এরপর আবার রাজধানীতে ফিরবো।

পিরোজপুর যাত্রী  শেফালী বলেন, ঈদে বাড়ি ফেরা হয়নি। ঢাকায়  কোরবানি করেছি। এখন মাংস নিয়ে বাড়ি যাচ্ছি। গুঁড়ি গুঁড়ি  বৃষ্টি হচ্ছে। মাঝ পদ্মা কিছুটা উত্তাল রয়েছে। এরপরও বাড়ি ফিরতে হবে। রাজধানীতে ফিরে আসছেন  আয়শা খাতুন বললেন, গতকাল বুধবার থেকে অফিস খোলা। গতকাল মঙ্গলবার নৌযান চলাচল বন্ধ ছিল। তাই গতকাল বুধবার ভোরে রওনা দিয়েছি। তবে ঘাটে এসে ঢাকাগামী যাত্রীদের চেয়ে বাড়ি ফেরাদের চাপই বেশি দেখা যাচ্ছে।

বিআইডব্লিউটিএর সদরঘাট লঞ্চঘাটের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বললেন, বুধবার সকাল থেকে নৌযান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। ঈদের তৃতীয় দিনেও ঘরমুখো যাত্রীদের ভীড় রয়েছে সদরঘাটে। এদিকে কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক আব্দুস সালাম মিয়া বললেন, বুধবার সকাল থেকে সবগুলো ফেরি চলছে। ঢাকায় ফেরা এবং ঘরমুখো উভয় যাত্রীদের ভিড় রয়েছে ফেরিতে। তবে আবহাওয়া পরিস্থিতি অনুকুলে না থাকলে ফেরীচলাচল বন্ধ রাখা হবে। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]