• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » কাদের সিদ্দিকীকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে ঢুকতে দেয়া হয়নি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নিন্দা


কাদের সিদ্দিকীকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে ঢুকতে দেয়া হয়নি কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নিন্দা

আমাদের নতুন সময় : 16/08/2019

ইউসুফ বাচ্চু : কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তমকে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে ঢুকতে দেয়া হয়নি। কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের যুগ্ম-সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বঙ্গবীর গতকাল বৃহস্পতিবার বিকাল চারটায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে গেলে তাকে আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা ঢুকতে দেয়নি। বঙ্গবীরকে জানানো হয় আজ পরিবারে সদস্যরাই কেবল ৩২ নম্বরে প্রবেশ করতে পারবে। ইকবাল সিদ্দিকী আরও জানান, বঙ্গবন্ধুর মেয়ে শেখ রেহানাই বঙ্গবীরকে বলেছেন ৩২ নম্বর শুধু পরিবার নয় সব মানুষের জন্য সব সময় উন্মুক্ত থাকবে। আর এজন্যই বঙ্গবীর এদিনে গিয়েছিলে সেখানে। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য তাকে ঢুকতে দেয়া হয়নি।
এদিকে বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীর দিনে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীকে বঙ্গবন্ধু ভবনে প্রবেশে বাধা প্রসঙ্গে গতকাল দলের পক্ষ থেকে যুগ্ম-সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীর দিনে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনে প্রবেশ করতে বাধা দেয়া হয়েছে বঙ্গবন্ধু হত্যার একমাত্র প্রতিবাদকারী বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তমকে। বিকেল ৪টার দিকে বঙ্গকন্ধু ভবনে প্রবেশ করতে গেলে প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তার গতিরোধ করেন এবং প্রায় আধা ঘণ্টা দাঁড় করিয়ে রেখে বলেন, “গধষব ধৎব হড়ঃ ধষষড়বিফ, ঙহষু ভধসরষু সবসনবৎং ধৎব ধষষড়বিফ” এরপর বঙ্গবীর সেখান থেকে ফিরে আসেন।
কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের নিন্দা: বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকীর দিনে ধানমন্ডিরর ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু ভবনে বঙ্গবন্ধু হত্যার একমাত্র প্রতিবাদকারী বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরউত্তমকে প্রবেশ করতে না দেয়ায় কৃষক শ্রমিক কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান বীরপ্রতিক তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, একদিকে সরকার মুজিব বর্ষ ঘোষণার মাধ্যমে দলমত নির্বিশেষে বঙ্গবন্ধুকে যথাযথ মর্যাদা দেয়ার আহবান জানায়, অন্যদিকে তার হত্যার একমাত্র সশস্ত্র প্রতিবাদ করে ১৬ বছর যিনি নির্বাসনে থাকেন সেই বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর মতো মানুষকে বঙ্গবন্ধু ভবনে প্রবেশে বাধা দেয়। তিনি আরও বলেন,সরকারের এহেন আচরণে প্রতীয়মান হয় যে সরকারেরই একটা অংশ বঙ্গবন্ধুকে সরকারি বা দলীয় সম্পদ হিসেবে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার করতে চায়, যা কোন দেশপ্রেমিক মানুষের কাম্য নয়। সম্পাদনা : সমর চক্রবর্তী




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]