• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » ড. জিনাত হুদা বললেন, রাজনৈতিক নেতা ও সমাজকর্মীদের একসঙ্গে বখাটেদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে


ড. জিনাত হুদা বললেন, রাজনৈতিক নেতা ও সমাজকর্মীদের একসঙ্গে বখাটেদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে

আমাদের নতুন সময় : 17/08/2019

আমিরুল ইসলাম : দিন দিন সমাজে বখাটেদের উৎপাত বেড়েই চলেছে। বখাটেদের হাতে লাঞ্ছনার শিকার হওয়ার খবর এখন আমরা নিত্যদিনই দেখতে পাই। সমাজে বখাটেদের উৎপাত কমানোর জন্য কী ধরনের পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক, অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা বলেন, রাজনৈতিক নেতা ও সমাজকর্মীদের একত্রিত হয়ে বখাটেদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।

তিনি বলেন, সমাজে বখাটে, সন্ত্রাসী ও মাস্তানদের উৎপাত বেড়ে গেছে। এর বিরুদ্ধে আমাদের কতোগুলো পদক্ষেপ নিতে হবে : ১.এলাকায় যারা আছেন, রাজনৈতিক নেতা ও সামাজকর্মী, তাদের একত্রিত হয়ে সন্ত্রাসী ও বখাটেদের বিরুদ্ধে মুখ খোলা প্রয়োজন। ২. আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর এ ব্যাপারে একটি কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে হবে। আইনের সঠিক প্রয়োগ করতে হবে। ৩. পরিবারগুলোকে প্রতিবাদ করতে হবে বখাটেদের বিরুদ্ধে। যখন পরিবারের একটি মেয়ে লাঞ্ছিত হয় তখন পরিবারগুলোতেও দেখা যায় একধরনের নির্লিপ্ততা, সংকোচ, লজ্জা ও ভয়। এসব কারণে দেখা যায় মেয়েটির পরিবার থেকেও কেউ এগিয়ে আসে না। এখন যুগের অনেক পরিবর্তন হয়েছে। বখাটে, সন্ত্রাসী ও মাস্তানের বিরুদ্ধে পরিবার থেকেও মুখ খোলা উচিত। যে মেয়েটি লাঞ্ছনার শিকার হলো তার পরিবার এখানে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। ৪. সামাজিক মূল্যবোধের যে চরম অবক্ষয় হয়েছে সেটা রোধ করতে না পারলে সমাজ থেকে এ ধরনের অন্যায়-অনাচার দূর করতে পারবো না।

তিনি আরও বলেন, ফেসবুক, ইন্টারনেট,পর্নোগ্রাফী ও কম্পিউটারের মাধ্যমে একটা কুৎসিত, কদর্য সংস্কৃতির মধ্যে আমরা ডুবে গেছি। এই জায়গাটার নিয়ন্ত্রণ আমাদের করতেই হবে। প্রতিটি মানুষকে চরিত্রবান, নৈতিকতা মানবিক, পরোপকারী ও দয়ালু হওয়ার শিক্ষাগুলো আমরা দিচ্ছি না। আমাদের পরিবার, বিদ্যালয়, সমাজ ও গণমাধ্যম দিচ্ছে না। তাই ভালো মানুষ হওয়ার শিক্ষা এখন সমাজের তলানিতে চলে গেছে, এই শিক্ষা এখন সমাজে নেই। তার পরিবর্তে কুসংস্কার, মৌলবাদী, জঙ্গিবাদী হওয়ার শিক্ষা একদিকে দিচ্ছি। অন্যদিকে আল্ট্রামডার্ন ও উচ্ছৃঙ্খল হওয়ার শিক্ষা দিচ্ছি। বিশ্বায়নের নামে আমরা বিভিন্ন ধরনের কদর্য ও অশ্লীল সংস্কৃতি গ্রহণ করছি। সবাই মিলে আমাদের এই জায়গাটিতে পরিবর্তন আনতে হবে। তা না হলে এ ধরনের সমস্যার সমাধান সম্ভব নয়।

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]