৮৮-তে মুর্তজা বশীর

আমাদের নতুন সময় : 17/08/2019

শেখ মিরাজুল ইসলাম : আমাদের শিল্পাঙ্গনের প্রবাদপ্রতিম পুরুষ মুর্তজা বশীর আজ ৮৮ বছরে পদার্পণ করলেন। ১৯৪৯ সালে তদানীন্তন ঢাকা আর্ট কলেজের দ্বিতীয় ব্যাচে ভর্তি হওয়া কালোত্তীর্ণ শিল্পীদের মাঝে একমাত্র মুর্তজা বশীরই কালের সাক্ষী হয়ে এখনো বেঁচে আছেন আমাদের মাঝে। ১৯৫১ সালে তৎকালীন ‘ঢাকা আর্ট গ্রুপে’র মাধ্যমে পূর্ব পাকিস্তানে সর্বপ্রথম যে চারুকলা প্রদর্শনী হয় তরুণ মুর্তজা অংশ নিয়েছিলেন জয়নুল আবেদীন, শফিউদ্দীন আহমেদ, আনোয়ারুল হক, আব্দুর রাজ্জাক, কামরুল হাসান প্রমুখ প্রথিতযশা শিল্পীদের সঙ্গে। সেই থেকে তার নিরবচ্ছিন্ন পথ চলা শুরু।  চিত্রকলার উপর শিক্ষা গ্রহণ করেছেন ইতালীর ফ্লোরেন্সে। সংগ্রামী শিল্পী জীবন কাটিয়েছেন লন্ডন, প্যারিস, করাচি, লাহোর ও কলকাতায়। ১৯৫৯ সালে করাচিতে মুর্তজার প্রথম একক প্রদর্শনী হয়েছিলো।

১৯৫২ সালে ভাষা সৈনিক হিসেবে এঁকেছিলেন একুশে ফেব্রুয়ারি সংকলনের জন্য অসামান্য ড্রয়িং, পরবর্তীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের স্মারক ম্যুরাল, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি উৎসর্গকৃত ‘এপিটাফ’ সিরিজ, সমাজের দমবন্ধ করা বৈষম্য ও ব্যক্তিগত জীবনের ঘাত-প্রতিঘাতের বিমূর্ত ক্যানভাসের ‘দেয়াল’ সিরিজ, অন্তর্গত বোধের আনন্দ আখ্যানমূলক রং মাখানো ‘পাখা’ সিরিজ, আধ্যাত্মিক অনুভাবনার ‘কলেমা’ সিরিজসহ মূর্ত-বিমূর্ত অসংখ্য শিল্পকর্মে আমাদের শিল্পজগতকে ঋণী করে গেছেন। ১৯৮০ সালে ‘একুশে পদক’ ও ২০১৯ সালে ‘স্বাধীনতা পদক’ শিল্পীর কাজের স্বীকৃতির প্রাপ্তিকে সম্পূর্ণ করেছে।

আঁকাআঁকি জগতের বাইরে মুর্তজার রয়েছে নিজস্ব লেখক ও গবেষক সত্তা। ১৯৭৮ সালে সাপ্তাহিক বিচিত্রার ঈদ সংখ্যায় প্রথম প্রকাশিত হয় তার আলোচিত উপন্যাস ‘আলট্রামেরিন’। তবে শিল্পীর প্রথম ছোট গল্প ‘পার্কের একটি পরিবার’ প্রকাশিত হয় ১৯৫০ সালে দৈনিক সংবাদের সাহিত্য পাতায়। তাছাড়া মুর্তজা প্রকাশ করেছেন গল্প সংকলন ‘গল্পসমগ্র’ ও চারটি কাব্যগ্রন্থ। সর্বশেষ কাব্যগ্রন্থের নাম ‘সাদায় এলিজি’। গবেষক হিসেবেও ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর কনিষ্ঠ পুত্র মুর্তজা নিজস্ব কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখেছেন। বাংলার হাবশী সুলতানদের নিয়ে করেছেন মৌলিক গবেষণা। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির একজন সম্মানিত সদস্য। ১৭ আগস্ট মুর্তজা বশীরের শুভ জন্মদিনে শিল্পীর শতবর্ষ কামনা করছি। আমাদের একান্ত চাওয়া মুর্তজার অন্বেষী হৃদয় যেন আমাদের শতবর্ষী জীর্ণ সমাজকে বদলে দিতে পারে।

লেখক ও চিকিৎসক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]