• প্রচ্ছদ » » আমরা কি আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারছি?


আমরা কি আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারছি?

আমাদের নতুন সময় : 19/08/2019

কামরুল হাসান মামুন

আমার কাছে চিনি আছে দশ গøাস শরবত বানানোর। এখন চাহিদা বেশি বলে চিনি না বাড়িয়ে পানি মিশিয়ে একশ গøাস শরবত বানালাম। ঠিক সেই কাজটিই হচ্ছে আমাদের দেশে। আমাদের দেশে দশ-বারোটি ভালো মানের বিশ্ববিদ্যালয় বানানোর মতো শিক্ষক আছে। কিন্তু আমরা শতাধিক বানিয়ে ফেলেছি এবং আরও বানানোর চেষ্টা করছি। ফলে যাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক হওয়ার কথা নয় তাদের শিক্ষক বানিয়ে দেয়া হচ্ছে। এদের আচরণ কথাবার্তা শিক্ষকসুলভ নয়। এরাই এখন সংখ্যায় অধিক। এই অধিকাংশ অশিক্ষকদের আচরণ দেখে সমাজে শিক্ষকদের অবস্থান দিন দিন নেমে যাচ্ছে। যার প্রভাব শিক্ষার্থীদের মধ্যেও পড়ছে। শিক্ষক নিয়ে কথা বলতে গিয়ে কেউ এখন আর মুখে লাগাম টানে না। এই অবস্থার উন্নতির জন্য আমাদের বাইর থেকে উপযুক্ত শিক্ষক আনতে হবে। অন্য সব পেশায় বিদেশি মানুষ এসে এই দেশে চাকরি করতে পারে, কিন্তু শিক্ষকতা পেশায় একটিবার আছে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে লেখা থাকে প্রার্থীকে বাংলাদেশি নাগরিক হতে হবে। অথচ আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগের কথা বলছি। বিশ্ববিদ্যালয় শব্দটির মাঝে যেখানে ‘বিশ্ব’ যা ইউনিভার্স কথাটি আছে সেখানে এরকম জাতীয়তাবাদ যায় না। পৃথিবীতে কোনো ভালো বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঢুকলেই একটি আন্তর্জাতিক আবহ পাওয়া যাবে ঠিক যেমন এয়ারপোর্ট ও পাঁচ তারকা হোটেলে।
একটি পরিকল্পনা করতে হবে। প্রথম ধাপে আমাদের ছেলেমেয়েরা যারা বিদেশে পিএইচডি করেছে, পোস্ট-ডক করেছে বা করছে, বিদেশে বিশ্ববিদ্যালয় লেভেলে শিক্ষকতা করছে তাদের যথাযোগ্য সুযোগ-সুবিধা দিয়ে ফিরিয়ে আনতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষকতায় ফিক্সড বেতন স্কেলও থাকতে পারে না বা থাকা উচিত নয়। সবার বেতন এক হতে পারে না। বেতন হওয়া উচিত যোগ্যতার উপর নির্ভর করে। কেউ যদি বীপবঢ়ঃরড়হধষষু ভালো হয় তাকে বীপবঢ়ঃরড়হধষ বেতন দিতে হবে। তাহলেই আমরা ভালো শিক্ষক পাবো। যেই সমাজ সবাইকে গড়ের মাল ভেবে বিচার করে সেই সমাজে ব্যতিক্রমী মানুষ জন্মাবে না। আমাদের চীনের মডেল গ্রহণের চিন্তা করতে হবে। তারা যেমন ১০০০ ট্যালেন্টস হান্টিং প্রোগ্রাম নিয়েছে সেরকম আমাদেরও কিছু একটা করতে হবে। তাহলেই কেবল আমরা আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সঠিকভাবে গড়ে তুলতে পারবো। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]