• প্রচ্ছদ » সাবলিড » ট্যানারি মালিকদের কাছে কাঁচা চামড়া বিক্রয়ে রাজি আড়তদাররা


ট্যানারি মালিকদের কাছে কাঁচা চামড়া বিক্রয়ে রাজি আড়তদাররা

আমাদের নতুন সময় : 19/08/2019

মেরাজ মেভিজ :  ত্রিপক্ষীয় বৈঠকে ফলপ্রসু আলোচনার পর চামড়া বিক্রয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আড়তদাররা। তবে ট্যানারি মালিক ও আড়তদারদের দেনা পাওনার হিসেব সহসাই মিটছে না। এ সমস্যা সমাধানের দায়িত্ব তুলে দেয়া হয়েছে এফবিসিসিআই’র কাঁধে। আগামী ২২ আগস্ট দুই পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন তারা। গতকাল ট্যানারি মালিক, আড়তদার ও কাঁচা চামড়া সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক শেষে এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনার পর চামড়া শিল্পে কোনো সমস্যা নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, আজকের (গতকাল) বৈঠকে বিষয়টি সমাধান হয়েছে। আগামী ২২ তারিখ তারা বসে সিদ্ধান্ত নেবে। এটা গতানুগতিক, এখানে তেমন কোনো সমস্যা নেই। আজকেই সব সমাধান হয়েছে। তাছাড়া আগে কিন্তু তারা পাওনার জন্য কখনো অভিযোগ করেনি। সেখানে যে আস্থার বিষয় সেটি কাজ করেছে।

বৈঠক শেষে নিজেদের আগের অবস্থান থেকে সরে আসার বিষয়ে নিশ্চিত করে বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন বলেন, সর্বসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত হয়েছে, আজ (গতকাল) থেকেই চামড়া বিক্রি শুরু করা হবে।

নিজেদের পাওনা প্রসঙ্গে বলেন, মাননীয় মন্ত্রী ও উপদেষ্টা মহোদয় এফবিসিসিআইকে দায়িত্ব দিয়েছেন। আগামী ২২ আগস্ট এফবিসিসিআইয়ের উদ্যেগে এ নিয়ে আলোচনা হবে দুই পক্ষের মধ্যে। আশা করছি তারা দু’পক্ষের সঙ্গে বসে সমাধান করে দেবেন। এছাড়া যে সমস্যা ট্যানারির মধ্যে রয়ে গেছে, তা সমাধানে মন্ত্রী ও উপদেষ্টা কাজ করবে বলে জানিয়েছেন।

এদিকে গতকাল রাতে না পারলেও আজ থেকে পুন উদ্যমে চামড়া কেনা শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএ) সাধারণ সম্পাদক ও সালমা ট্যানারির মালিক সাখাওয়াত উল্লাহ। এ প্রতিবেদককে  তিনি বলেন, আসলে সম্পর্কটা তো আর আজকের নয়। কিছু সমস্যা রয়েছে, যা গত দুই বছরে কিছুটা বড় আকার ধারণ করেছে। কয়েকটি ট্যানারির কাছে তাদের বেশ কিছু অর্থ পাওনা রয়েছে, আমরাও সর্বোচ্চ সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছি। আশা করছি এফবিসিসিআই’র উদ্যোগে ২২ তারিখের মিটিংয়ে এর সমাধান চলে আসবে।

চলমান এ অস্থিরতায় বেশকিছু চামড়া যে নষ্ট হয়েছে তা নিশ্চিত করেন বৈঠকে উপস্থিত থাকা প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। সারা দেশের প্রতিনিধিদের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, কোরবানিতে এক কোটি চামড়া হয়। এবার তার মধ্যে ১০ হাজার চামড়া নষ্ট হয়েছে, মাটিতে যে চামড়া গেছে তাসহ। প্রতিবছর কিন্তু ৫ হাজার চামড়া এমনি নষ্ট হয়। এবার মূলত বেশি গরমের জন্যই চামড়া বেশি নষ্ট হয়েছে। যা মোট চামড়ার শূণ্য দশমিক পাঁচ শতাংশ। জেলা থেকে আগত প্রতিনিধিরা জানিয়েছে চিটাগাং ও সিলেটে বেশি চামড়া নষ্ট হয়েছে। নাটোরে নষ্টই হয়নি। আর কুষ্টিয়ায় কিছু নষ্ট হয়েছে।

এদিকে কাঁচা চামড়া রপ্তানির যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তা থেকে সরে আসারই আভাস দিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন। তার ভাষ্য, চামড়া শিল্প নীতিমালা হচ্ছে। আর অবস্থা বুঝে সিদ্ধান্ত (কাঁচা চামড়া রপ্তানির) নেওয়া হবে। কাঁচামাল রপ্তানি করা একটা প্রক্রিয়ার ব্যাপার। আমরা প্রয়োজন মনে করলে রপ্তানি করব। আসলে অবস্থা বুঝে রপ্তানি করব নাকি করব না সেই সিদ্ধান্ত নেব।

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]