• প্রচ্ছদ » সাবলিড » শ্রীনগরে ব্যাপক বিক্ষোভ-সংঘর্ষ, নিহত ১ আহত ২৪, আবারও কারফিউ জারি


শ্রীনগরে ব্যাপক বিক্ষোভ-সংঘর্ষ, নিহত ১ আহত ২৪, আবারও কারফিউ জারি

আমাদের নতুন সময় : 19/08/2019

TOPSHOT – Protesters shout slogans at a rally against the Indian government’s move to strip Jammu and Kashmir of its autonomy and impose a communications blackout, in Srinagar on August 16, 2019. (Photo by STR / AFP)

আসিফুজ্জামান পৃথিল : অধিকৃত জম্ম-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে সারারাত পুলিশের সংঘর্ষের পর রোববার সকালে শ্রীনগরের অনেক এলাকায় আবারও চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে সরকার। সংঘর্ষের ঘটনায় একজন নিহত ও ২৪ আহত হয়েছে বলে দুজন জেষ্ঠ্য সরকারি কর্মকর্তা আর একজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন। ডন নিউজ।

শনিবারই শ্রীনগরে কারফিউ শিথিল করে যোগাযোগ ব্যবস্থা শুরুর ঘোষণা দেয় ভারত সরকার। পরবর্তী ২৪ ঘন্টায় প্রতিবাদকারীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংঘর্ষ শুরু হয়। রোববার সকালেই নগরীর বিভিন্ন এলাকায় আবারো রোড ব্লক স্থাপন করে নিরাপত্তা বাহিনী ও অধিবাসিদের নিজ নিজ বাড়িতে ফিরে যেতে নির্দেশ দেয়। এসব স্থানে নিরাপত্তা রক্ষীরা জনতাকে জানায়, তারা যেনো ঘরে ফিরে যান, কারণ কারফিউ বলবত করা হয়েছে। একজন জেষ্ঠ্য সরকারি কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, কমপক্ষে ২৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের সবাই প্যালেট বুলেটের আঘাতে আহত। তবে সংঘর্ষ হয়েছে কি পর্যায়ে সে বিষয়ে কাশ্মীর রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের কোন কর্মকর্তা মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানান। আর একজন জেষ্ঠ্য সরকারি কর্মকর্তা জানান, শ্রীনগরের ২ ডজনের বেশি স্থানে উত্তেজিত জনতা নিরাপত্তারক্ষীদের পাথর ছুড়েছে।

রয়টার্স জানায়, সবচেয়ে বেশি সংঘর্ষ হয়েছে শ্রীনগরের পুরাতন শহরের রাইনাওয়ারি, নওহেত্তা এবং গোজওয়ারা এলাকায়। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের উপর প্যালেট, টিয়ারগ্যাস এবং মরিচের গুড়ার গ্রেনেড ছুড়ে। মরিচের গুড়ার গ্রেডে সম্প্রতি কাশ্মীরে ব্যবহার শুরু হয়েছে। এই গ্রেনেড চোখ ও চামড়ায় তীব্র অস্বস্তি তৈরী করে।

শ্রীনগরের প্রধান হামপাতালের চিকিৎসকরা জানান, যারা ভর্তি হয়েছেন তাদের ১৭ জন প্যালেট দ্বারা আহত হয়েছেন। এদের ৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। হাসপাতালের কর্মককর্তা ও পুলিশের ২ কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানান, একজন ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধও হাসপাতালে ভর্তি হয়ছিলেন। উপর্যপুরি মরিচ গ্রেনেড আর টিয়ার গ্যাস শেল বিস্ফোরণে মোহাম্মদ আইয়ুব নামের এই ব্যক্তি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তিনি শ^াস নিতে পারছিলেন না। শনিবার রাতেই হাসপাতালে মোহাম্মদ আইয়ুব মারা যান।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]