• প্রচ্ছদ » » মাশরাফির উচিত সম্মানের সঙ্গে বিদায়ের সুযোগ নেয়া


মাশরাফির উচিত সম্মানের সঙ্গে বিদায়ের সুযোগ নেয়া

আমাদের নতুন সময় : 20/08/2019

মির্জা ইয়াহিয়া : এদেশের মানুষ কখন কোন ইস্যু নিয়ে মেতে থাকে, ফেসবুকের কারণে তা সহজেই বুঝতে পারি। এই তো কিছুদিন আগে আমরা গণপিটুনির বিষয়টি নিয়ে খুব আলোচনা করেছি। আর ডেঙ্গু নিয়ে তো এখনো আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। ঈদের দিন থেকে চামড়ার দাম নিয়ে সবাই সরব। মাঝখানে কিছুদিন কম থাকলেও এখন আবার ক্রিকেট নিয়ে খুব কথা হচ্ছে। শুরুর আগেই বাংলাদেশের নতুন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গোকে নিয়ে সমালোচনা চলছে। তবে একই সময়ে মাশরাফির অবসরের বিষয়টি আলোচনা তুঙ্গে উঠেছে। এটা ঠিক যে আনফিট অবস্থায় তিনি কতোদিন মাঠে থাকতে পারবেন, কতোটা কী করতে পারবেন- তা নিয়ে আলোচনা হতেই পারে। বিষয়টি নিয়ে আমিও ভাবছি। তা শেয়ার না করেও পারছি না।
শুরুতেই আমি বলবো, বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। শুধু আমাদের দেশ নয়, বিশ্ব ক্রিকেটও তার মতো লড়াকু মানসিকতার খেলোয়াড় খুব একটা পায়নি। বারবার চোটে পড়েছেন। বহু বার ছুরির নিচে যেতে হয়েছে তাকে। লড়াই শেষে আবার মাঠে ফিরেছেন। সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েই দলকে সামনের দিকে টেনে নিয়ে গেছেন।
গত কয়েক বছরে মাশরাফিকে মাঠে যেভাবে দেখেছি, তাতে তাকে পুরো ফিট মনে হয়নি। কেবল মনের জোরে, দেশের টানে খেলেছেন এবং দলকে সাফল্য এনে দিয়েছেন। কেবল অধিনায়ক হিসেবেই পুরো দেশবাসী তার ভক্ত বনে গেছে। তিনি যেন পুরো দেশেরই ক্যাপ্টেন। কেননা তার নেতৃত্বগুণ অন্যরকম, তুলনাহীন। কিন্তু মাঠের খেলায় মনের জোরের পাশাপাশি শরীরের জোরও প্রয়োজন। বিশ্বকাপে কিন্তু সেটাই দেখা গেছে। প্রতিভাবান পেসার মাশরাফির বলে আগের সেই ধার নেই। লাইন-লেন্থ দিয়ে সেই ঘাটতি মেটানোর চেষ্টা করে গেছেন। কিন্তু একটা সময় আসলে বয়সের কাছে, শরীরের কাছে হার মানতে হয়। আমার মনে হয় মাশরাফির জন্য সেই সময়টা এসে গেছে। টাইগার ভক্তদের সবাই আসলে ভেবেছিলো বিশ্বকাপের পর মাশরাফি অবসর নেবেন। তেমনটা ভেবেছিলো বিসিবিও। তাই এই বছর বাংলাদেশের মাটিতে ওয়ানডে ম্যাচ না থাকলেও শুধু ওয়ানডে অধিনায়কের সম্মানে দেশের মাটিতে বিশেষ একটা আয়োজনের চিন্তাভাবনা করছিলো তারা। কিন্তু সর্বশেষ মাশরাফি জানিয়ে দিয়েছেন, এখন তিনি অবসর নেবেন না। আরো দুই মাস সময় চেয়েছেন বিসিবির কাছে। এই সময় নেয়ার কারণ সম্পর্কে মাশরাফিই ভালো বলতে পারবেন।
এখানে আরো একটা বিষয় বলে রাখি, সসম্মানে মাঠ থেকে বিদায় নেয়ার মানসিকতা আমাদের দেশে কম। আর আনুষ্ঠানিক বিদায়ী ম্যাচ খেলার সৌভাগ্যও সব খেলোয়াড়ের হয় না। আমার মনে হয় মাশরাফির এ সুযোগ নেয়া উচিত। উনি অনেক দিক দিয়েই অন্যদের চেয়ে আলাদা। তাই সম্মানের সঙ্গে মাঠ থেকে বিদায় নিবেন- এ নজিরও মাশরাফির রেখে যাওয়া প্রয়োজন। বাংলাদেশের জন্য এই সংস্কৃতি বড় দরকার, আমাদের ক্যাপ্টেন বিষয়টা ভেবে দেখবেন তো! ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]