• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » কাশ্মীরে আরো ৩০ বিক্ষোভকারী আটক  রাতের আঁধারে নিখোঁজ হচ্ছে যুবকরা


কাশ্মীরে আরো ৩০ বিক্ষোভকারী আটক  রাতের আঁধারে নিখোঁজ হচ্ছে যুবকরা

আমাদের নতুন সময় : 21/08/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। একইসঙ্গে চলছে নিরাপত্তা বাহিনীর গ্রেফতার অভিযান। সোমবার রাতে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে গ্রেফতার করা হয়েছে ৩০ জনকে। অনানুষ্ঠানিকভাবে গ্রেফতার হয়েছে কয়েক হাজার বলে একাধিক বিদেশী গণমাধ্যম প্রত্যক্ষ্যদর্শীদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে। রাতের আঁধারে বাড়িতে বাড়িতে হানা দিয়ে তুলে নেয়া হচ্ছে যুবকদের। রাজ্যটিতে বিরাজ করতে মৃত্যুর মতো আতঙ্ক। সিএনএ, স্কাই নিউজ, বিবিসি, এএফপি।

বিবিসি জানিয়েছে, ভারত ও পাকিস্তান মিলিয়ে কাশ্মীরের দুই অংশ মিলিয়ে সেনা মোতায়েন আছে ১০ লাখেরও বেশি। পৃথিবীর কোনো এলাকাতেই এতো ঘন পরিসরে সেনা মোতায়েন নেই। কাশ্মীরের আয়তন ২ লাখ ২২ হাজার ২৩৬ বর্গ কিলোমিটার। সে হিসেবে প্রতি বর্গ কিলোমিটারে প্রায় সাড় ৩ জনের বেশি সামরিক বাহিনীর সদস্য রয়েছেন। এই বিষয়টি নজিরবিহীন। এই পরিস্থিতিতে স্বাভাবিকভাবেই ভালো নেই কাশ্মীরিরা। এর মধ্যে সবার মধ্যে বিরাজ করছে অজানা আতঙ্ক। এই আতঙ্ক প্যালেট গানের গুলিতে আঘাতে অন্ধ হয়ে যাওয়ার, গ্রেফতার হওয়ার কিন্তু রাতের আঁধারে গুম হয়ে যাওয়ার। যারা গ্রেফতার হচ্ছেন, তাদের পরিবার কিছুটা স্বস্তি বোধ করছে। কারণ তারা তাদের সন্তানদের খবরর পাচ্ছেন। কিন্তু অধিকাংশের ভাগ্য এতোটা প্রসন্ন নয়। যাদের রাতের আঁধারে তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে তাদের খবর কেউ জানছে না।

কাশ্মীরি রাজনীতিবিদ শেহলা রশিদ দিল্লি থেকে সিরিজ টুইট করে বলেছেন, সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা রাতে বাড়ি বাড়ি হানা দিয়ে যুবকদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। ‘তারা বাড়িতে ঢুকে ভাঙচুর করছে, খাবার ফেলে দিচ্ছে বা চালের বস্তায় তেল ঢেলে দিচ্ছে এবং শেষে বাড়ির যুবকদের তুলে নিয়ে যাচ্ছে। সোপিয়ানের একটি আর্মি ক্যাম্পে চারজন যুবককে ধরে নিয়ে গিয়ে জেরা ও নির্যাতন করার সময় তাদের সামনে মাইক্রোফোন ধরে রাখা হয়েছিলো, যাতে তাদের চিৎকারের আওয়াজ শুনে গোটা এলাকা ভয় পায়।’

তবে সোপিয়ানের আর্মি ক্যাম্পে কাশ্মীরি যুবকদের উপর নির্যাতন চালিয়ে তার অডিও মহল্লায় শোনানো হয়েছে বলে শেহলা রশিদের দাবিকে সামরিক বাহিনী ‘ফেক নিউজ’ বা ভুঁয়া সংবাদ বলে প্রচার করছে। আর শেহলা রশিদের এইসব অভিযোগকে মিথ্যা রটনা দাবি করে ভারতের সুপ্রিম কোর্টে ইতিমধ্যেই তার বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলার আবেদন করেছেন আইনজীবী অলক শ্রীবাস্তব। তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, ‘ঐ সব কথিত নির্যাতনের অডিও বা ভিডিও কোথায়? কিংবা নির্যাতিতদের নাম, পরিচয় বা ঘটনা কোথায় ঘটেছে সেগুলোই বা কেন তিনি জানাতে পারছেন না?’

দুই সপ্তাহ আগে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে কেন্দ্র সরকার। এর একদিন আগেই উপত্যকাটিকে ঘিরে ফেলা হয় নিরাপত্তার চাদরে। সেখানে মুহুর্মুহ চলছে গ্রেফতারি অভিযান। বিভিন্ন সূত্র জানাচ্ছে জেলখানাগুলোতে পর্যাপ্ত জায়গা না হওয়ায় ভাড়া করা হচ্ছে গেস্ট হাউজ। ভারত সরকার বা প্রশাসন কয়জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে সে বিষয়ে কিছুই জানায়নি। তবে সরকারি মুখপাত্র নির্দিষ্টভাবে কোনও সংখ্যা জানাতে অস্বীকার করলেও বার্তা সংস্থা এএফপি কাশ্মীরে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ম্যাজিস্ট্রেটকে উদ্ধৃত করে বলছে, আটকের সংখ্যা কিছুতেই চার হাজারের কম হবে না।

কাশ্মীরে সোমবার থেকে খোলার কথা ছিলো সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তবে অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানেই তালা ঝুলতে দেখেছেন বিদেশী সাংবাদিকরা। যেগুলো খুলছে সেগুলো শিক্ষার্থী নেই বললেই চলে। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা কলেজগুলোতে। কারণ যুবকরা সবাই পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। কাশ্মীরকে এখন বলা যায় শিশু ও বুড়োদের দেশ। অনেক যুবককে বাবা মায়েরা উপত্যকার গহীনে পাহাড়ের গায়ে পাঠিয়ে দিচ্ছেন বলেও জানা গেছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান

 

 

 

 

 

 




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]