• প্রচ্ছদ » » সুলতান গিয়াসউদ্দীন আজম শাহ্র বিদেশ নীতি : আজও বাঙালায় প্রাসঙ্গিক


সুলতান গিয়াসউদ্দীন আজম শাহ্র বিদেশ নীতি : আজও বাঙালায় প্রাসঙ্গিক

আমাদের নতুন সময় : 21/08/2019

মাসুদ রানা

আজ যেমন আরবের বাদশাহ বাংলাদেশে মাদ্রাসা নির্মাণে অর্থায়ান করেন, আজ থেকে ৫০০ বছরেরও অধিকাল আগে, স্বাধীন ও সম্পদশালী বাঙালার তৃতীয় সুলতান গিয়াসউদ্দীন আজম শাহ্… যার শাসনকাল ছিলো ১৩৯০ খ্রিস্টাব্দ থেকে ১৪১১ খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত … হেজাজে (আরব) দূত পাঠিয়ে মক্কা ও মদিনাতে মাদ্রাসা নির্মাণের অর্থায়ন করেছিলেন।

সুলতান গিয়াসউদ্দিন আজম শাহ ধর্মবাদী ছিলেন না, তিনি ছিলেন হিন্দু-মুসলিমের সমন্বয়ে বাঙালি সংস্কৃতি ও আত্মপরিচয় প্রতিষ্ঠার পৃষ্ঠপোষক। তিনিই সেই সুলতান, যদি কবি কৃত্তিবাস ওঝাকে দিয়ে বাংলায় রামায়ণ ও শাহ মুহাম্মদ সাগীর দিয়ে ইউসুফ-জুলেখা রচনা করান। সুলতান গিয়াসউদ্দীন আজম শাহ আসাম জয় করেন বাংলার অন্তর্ভুক্ত করেন এবং চীনের মিং সা¤্রাজ্যের বিখ্যাত ইয়ংলা সা¤্রাটের দরবারে দূত প্রেরণ করেন। কারণ তিনি বুঝেছিলেন দিল্লির সম্ভাব্য আধিপত্য ও আগ্রাসন থেকে বাঙালাকে রক্ষার জন্য দেশের নিজস্ব শক্তি ছাড়াও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে চীনের সঙ্গে বন্ধুত্ব প্রয়োজন। আমার মনে হয় সুলতান গিয়াসউদ্দীন আজম শাহ্ বিচক্ষণ প্রতিরক্ষামূলক বিদেশ নীতি আজ ৫০০ বছর পরও বাঙালি জাতি-রাষ্ট্রের জন্য অনুসরণীয়। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]