• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » ৪শ কোটি টাকা বকেয়া পরিশোধে এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে সমঝোতা বৈঠক আজ


৪শ কোটি টাকা বকেয়া পরিশোধে এফবিসিসিআইয়ের সঙ্গে সমঝোতা বৈঠক আজ

আমাদের নতুন সময় : 22/08/2019

স্বপ্না চক্রবর্তী : বিগত বছরগুলোর প্রায় ৪শ কোটি টাকা বকেয়া পরিশোধ না করায় ট্যানারি মালিকদের কাছে কাঁচা চামড়া বিক্রি বন্ধের সিদ্ধান্ত নিলেও শেষ পর্যন্ত বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং শিল্প মন্ত্রণালয়ের মধ্যস্থতায় গত সোমবার থেকে বিক্রি শুরু করেছে আড়তদাররা। কিন্তু পাওনা টাকা আদায়ে তাদের শঙ্কা কাটেনি এখনো। তাই পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আজ এফবিসিসিআইয়ের নেতাদের মধ্যস্থতায় বৈঠকে বসছেন এ খাতের নেতারা। এফবিসিসিআইয়ের পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানও আশ^াস দিয়েছেন বিষয়টির সমাধান করবেন। তবুও আশ^স্ত হতে পারছেন না কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীরা। তারা জানিয়েছেন, এই বৈঠকে পাওনা পরিশোধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত না হলে কঠোর অবস্থানে যাবেন।
এদিকে ট্যানারি মালিকরা দাবি করছেন রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ব্যাংকগুলো এ বছর চামড়া কিনতে ১৮শ কোটি টাকা ঋণ দেয়ার কথা থাকলেও পাওয়া গেছে মাত্র দেড়শ কোটি টাকা। তাই কাঁচা চামড়া ব্যবসায়ীদের বকেয়া পরিশোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। এই মুহূর্তে এতো বড় পরিমাণের টাকা পরিশোধ করার সক্ষমতাও তাদের নেই বলে দাবি করেন তারা।
এ ব্যাপারে এফবিসিসিআইয়ের সহসভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আড়তদার এবং ট্যানারি মালিকদের দ্বন্দ্বের কারণে খাতটি একটা কঠিন সময় পার করছে। তবে আমাদের বিশ^াস আগামীকালের (আজ) বৈঠকে আমরা সবার সাথে আলোচনা করে বিষয়টির সমাধান করতে সক্ষম হবো। যেহেতু সালমান এফ রহমান নিজে বিষয়টি সমাধানের দায়িত্ব নিয়েছেন তাই সমাধান হয়ে অন্য কোনো উপায় দেখছি না।
তবে আগামীকালকের বৈঠকের পরই এ বিষয়ে বিস্তারিত মন্তব্য করবেন বলে জানিয়েছেন সালমান এফ রহমান। তিনি বলেন, যেহেতু এখন বাজারে চামড়া বিক্রি হচ্ছে। দুই পক্ষই বেচা-কেনা করছে তাই আমি বলবো এখনি কোনো ধরনের জল্পনা-কল্পনা না করে বৈঠকটা আগে হোক। তারপরেই কি হয়েছে আলোচনা করা যাবে।
বাংলাদেশ ট্যানারি এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, এ বছর কাঁচা চামড়া কেনার জন্য ব্যাংক থেকে ১৮শ কোটি টাকা ঋণ দেয়ার কথা থাকলেও আগের বছরগুলোর ঋণ পরিশোধ করতে না পারায় এ বছর মাত্র দেড়শ কোটি টাকা ঋণ পেয়েছি আমরা। তাই এই মুহূর্তে ৪শ কোটি টাকার মতো বড় পরিমাণের নগদ অর্থ আমাদের কাছে নাই। তবুও আগামীকালকের বৈঠকে সবার সম্মতিতে যা সিদ্ধান্ত নেয়া হয় তা আমরা মেনে নেবো।
তবে পাওনা টাকা আদায়ে কার্যকরী কোনো সিদ্ধান্ত এ বৈঠক থেকে না আসলে কঠোর অবস্থানে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন কাঁচা চামড়া আড়তদারদের সংগঠন বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (বিএইচএসএমএ) নেতারা। সংগঠনটির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, ট্যানারি মালিকরা আমাদের পাওনা তো মিটায়ইনি বরং আমরা সিন্ডিকেট করে চামড়া বিক্রি করছি বলে অভিযোগ করেছে। যা খুবই অন্যায্য। তবু শিল্প এবং বাণিজ্যমন্ত্রণালয়ের আহ্বানে আমরা তাদের কাছে কাঁচা চামড়া বিক্রি করতে রাজি হয়েছি। আগামীকালের (আজ) বৈঠকে যদি তারা বকেয়া পরিশোধের ব্যাপারে কোনো গড়িমসি করে তাহলে আমরা আরো কঠোর অবস্থানে যাবো। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]