• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » স্বজনদের দেখা পেলেন বন্দি কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি


স্বজনদের দেখা পেলেন বন্দি কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি

আমাদের নতুন সময় : 02/09/2019

রাশিদ রিয়াজ : গত ৫ আগস্ট গ্রেপ্তারের পর গত বৃহস্পতিবার অবশেষে আত্মীয়দের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেলেন কাশ্মীরের বন্দী সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতি। পিডিপি সভাপতি মেহবুবা মুফতি চেসমাশাহীতে পর্যটন বিভাগের একটি আবাসে রয়েছেন। ওই ভবন এখন সাব-জেল হিসাবেই ব্যবহার করা হচ্ছে। দু’জন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ অনুচ্ছেদ ভারতীয় সংবিধান থেকে তুলে দেয়ার পর এবং দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে বিভক্ত করার সরকারি সিদ্ধান্তের আগেই আটক করা হয়। ওমর আবদুল্লাহর পরিবার এই সপ্তাহে দু’বার শ্রীনগরের হরি নিবাসে তার সঙ্গে দেখা করেন। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু ও কাশ্মীর বিষয়ক পদক্ষেপের পরপরই আব্দুল্লাহকে এখানে নিয়ে আসা হয়। তার বোন সাফিয়া এবং তার সন্তানদেরও শনিবার ২০ মিনিটের জন্য আবদুল্লাহর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়।
বৃহস্পতিবার মেহবুবা মুফতির মা ও বোনকেও তার সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়। শনিবার ওমর আবদুল্লাহর সঙ্গে দেখা করার অনুমতি পাওয়ার আগে সাফিয়া এবং তার কাকীমা বেশ কয়েকবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। কর্মকর্তারা তাদের ফোনে যোগাযোগের অনুমতি দিলে তারা ১২ অগাস্ট আবদুল্লাহর সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পান।
ওমর আবদুল্লাহর বাবা এবং তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আবদুল্লাহকেও গৃহবন্দী করা হয়েছে, তার সঙ্গে ফোনে যোগাযোগের কোনও অনুমতিও দেওয়া হয়নি। জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসনের দুই উর্ধ্বতন কর্মকর্তা গত কয়েক সপ্তাহ ধরে তিনবার তাকে দেখতে গিয়েছিলেন। তবে বারবার তার ছেলের সাথে দেখা করতে চাওয়ার অনুরোধ করলেও তা অস্বীকার করা হয়।
সূত্রের খবর ওমর আবদুল্লাহ বা মেহবুবা মুফতির দু’জনেরই কারও কেবল চ্যানেলে সংবাদ দেখা এবং সংবাদপত্রের অভাবে খবর পড়ারও সুযোগ নেই। তবে, কর্মকর্তারা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীদের সিনেমা দেখার জন্য একটি ডিভিডি প্লেয়ার পাঠিয়েছেন। ৪৯ বছর বয়সী ন্যাশনাল কনফারেন্সের এই নেতা তার কিন্ডল ট্যাবলেটে বই পড়েন এবং নিয়মিত হরি নিবাসের চত্বরে হাঁটেন।
এদিকে কর্তৃপক্ষ দাবি করছে, তারা ধীরে ধীরে জম্মু ও কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণ শিথিল করছে তবে রাজনৈতিক নেতাদের শিগগিরই মুক্তি পাওয়ার কোনও ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক সম্প্রতি কৌতুক করে বলেন যে, বন্দি ওমর আবদুল্লাহ এবং মেহবুবা মুফতির পক্ষে বন্দি থাকাই উপকারী কারণ যখন তারা বেরোবেন আরও বেশি ভোট পেতে পারবেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]