• প্রচ্ছদ » আমাদের বিশ্ব » রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সুবিধা করে দিতে এনআরসির বিরোধিতা করছে তৃণমূল, অভিযোগ বিজেপি নেতা কৈলাশের


রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশে সুবিধা করে দিতে এনআরসির বিরোধিতা করছে তৃণমূল, অভিযোগ বিজেপি নেতা কৈলাশের

আমাদের নতুন সময় : 06/09/2019


রাশিদ রিয়াজ : ভারতের পশ্চিমবাংলায় বিভিন্ন প্রান্তে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে, তাদের দলীয় নেতা, কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ তুলে তিনদিন প্রতিবাদ বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে রাজ্য বিজেপি। দিন কয়েক আগেই আসামে জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এনআরসির তীব্র বিরোধিতা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে বুধবার বিজেপি নেতা কৈলাশ বিজয়বর্গীয় অভিযোগ করলেন, রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দিয়ে তাদের ভোটব্যাঙ্ক হিসেবে ব্যবহার এবং বিজেপি কর্মীদের মারধর করার জন্যই এনআরসির বিরোধিতা করছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এনডিটিভি
রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত গেরুয়া শিবিরের এই পর্যবেক্ষক দাবি করেন, তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে তাদের দলে যোগ দেওয়া, অর্জুন সিং এবং মুকুল রায়কে হত্যার চক্রান্ত করছে তৃণমূল কংগ্রেস। তিনি বলেন, “কেন, অনুপ্রবেশকারীদের তাড়াতে করা এনআরসির বিরোধিতা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? তার বিরোধিতার কারণ কী? কারণটা ভোটব্যাঙ্ক রাজনীতি। বাংলাদেশী এবং রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস সরকার”।
শ্যামবাজারের একটি সভায় কৈলাশ বিজয়বর্গীয় আরও বলেন, “তাদের আশ্রয় দেওয়া হচ্ছে, যাতে তাদের ভোটব্যাঙ্ক হিসেবেও ব্যবহার করা যায়, আবার রাজ্যের বিজেপি কর্মীদের মারধর এবং হত্যা করা যায়”। এনআরসির মাধ্যমে নিজের দেশেই প্রকৃত ভারতীয় নাগরিকদের উদ্বাস্তু বানানো হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস, পাশাপাশি এএনআরসির বিরোধিতায় রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদের ডাক দিয়েছে জোড়াফুল শিবির।
রোববার বিজেপি নেতা অর্জুন সিং-এর ওপর হামলার ঘটনার প্রসঙ্গ তুলে বিজেপি নেতা বলেন, “তাকে হত্যা করার ছক কষেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে তারা ব্যর্থ হয়েছে। আমি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সতর্ক করে দিতে চাই যে, যদি অর্জুন সিংকে হত্যা করা হত, তাহলে তার সরকার শেষ হয়ে যেত”।
এর আগে অর্জুন সিং দাবি করেন যে, তার লোকসভা কেন্দ্রের একটি জায়গায় “শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ” করার সময়, তার ওপর আঘাত করেন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশমার মনোজ বার্মা, ফলে মাথায় ক্ষত সৃষ্টি হয় তার। যদিও পুলিশের তরফে দাবি করা হয়, নিজের দলের কর্মীদের ইট ছোড়াঁছুঁড়িতেই আহত হয়েছেন অর্জুন সিং।
রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে, তাদের দলীয় নেতা, কর্মীদের ওপর হামলার অভিযোগ তুলে তিনদিন প্রতিবাদ বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে রাজ্য বিজেপি। কৈলাশ বিজয়বর্গীয়ের অভিযোগ, নিজেদের “রাজনৈতিক স্বার্থ চরিতার্থ” করতে এবং বিরোধীদের মুখ বন্ধ করতে পুলিশ ও প্রশাসনকে ব্যবহার করছে তৃণমূল কংগ্রেস।
কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, “বিজেপি যেদিন ক্ষমতায় আসবে, সেদিন শুধুমাত্র আমাদের কথাই শুনতে হবে পুলিশকে”।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]