ভূপেন হাজারিকা : গায়ক মানুষের জন্য

আমাদের নতুন সময় : 08/09/2019

অজয় দাশগুপ্ত : বাংলা গানে জীবনমুখী ধারা বলে এখন যা শুনি তার হোতা বা মূলে আছেন তিনি। যৌবনে বামধারায় বিশ্বাসী গণনাট্য সংস্থার সাথে যুক্ত ছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই তার গানের কথা ও সুরে ছিলো ভিন্ন মাত্রা। এমনকি তিনি যেসব প্রেমের গান গেয়েছেন সেগুলোও বিদ্রোহ আর অভিমানে রঙিন। একজন গায়ক কতোটা উদার আর বিপ্লবী হলে প্রশ্ন নদীকে করতে পারেন, নৈতিকতার পতন দেখেও নির্লজ্জ বেহায়াভাবে বইছো কেন? এসবের পরিণামে নানা দুর্দশাও সহ্য করতে হয়েছে তাকে। কারাগার থেকে অপমান সব জুটেছিলো। কিন্তু থামেননি। বাংলা অসমীয়া হিন্দি সব ভাষাতেই সমান পারদর্শী।
আমাদের যৌবনে আমরা যে সাম্য আর ভালোবাসার স্বপ্ন দেখতাম সে ধরণের গান পেতাম না। বাধ্য হয়ে পল্লবসেনদের গান খুঁজতে হতো। তিনি এসে তার ইতি ঘটিয়েছিলেন। শীতের শিশির ভেজা রাতে সংখ্যালঘুদের নিরাপত্তা পাওয়ার কথা যে গান হতে পারে তার আগে জানা ছিলো না। এক যাযাবর মার্ক টোয়েনের সমাধিতে বসে গোর্কির কথা বলছেন তাও গান। পালকি সত্যেন্দ্রনাথ দত্তের বিখ্যাত কবিতা। সেটিও গান। কিন্তু তাতে কি বাহকের বেদনা আর দুঃখ সেভাবে এসেছে যেভাবে তিনি এনেছেন? তিনি গাইলেন, হায় মোর ছেলেটির উলঙ্গ শরীরে একটুও জামা নেই, খোলা… দোলা হে দোলা হে দোলা। আমাদের চোখ ভিজে আসে। তার গানের এই হচ্ছে ক্যারিশমা। কঠিন বিষয়েও করে তোলে বেদনাঘন।
বাংলাদেশের সিনেমায় একটি গান এখনো কোনো গান অতিক্রম করতে পারেনি। সুর ও বাণীতে অসামান্য সেই ‘বিমূর্ত এই রাত্রি আমার মৌনতার সুতোয় বোনা একটি রঙিন চাদর’ কি কবিতা না গান? এমনই ছিলো তার যাদুকরী প্রতিভা। জীবনে অসাধারণ সব সম্মান অর্জন করেছেন আমাদের এই মাহুত বন্ধু। ভারতের পদ্মশ্রী পদ্মবিভূষণ শেষে ভারতরতœ কিছুই বাদ যায়নি। তবু চাঁদেরও কলঙ্ক আছে। তিনি কেন জানি না শেষ বয়সে আজীবনের আদর্শ আর লালিত বিশ্বাস ধরে রাখতে পারেননি। সাম্প্রদায়িক ধর্ম ভিত্তিক দল বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। যা অসংখ্য ভক্ত শ্রোতাকে আহত করেছে। কিন্তু সেটাই তার পূর্ণাঙ্গ জীবন না। আজীবন গান আর মানুষকে ভালোবাসার গায়ক ভূপেন হাজারিকাকে কেউ ভুলতে পারবে না। যার প্রমাণ বিবিসি জরিপে প্রথম সারিতে চলে আসা তার সেই গান ‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য’। এমন করে আমাদের কেউ জীবন চেনাতে পারেনি। শুভ জন্মদিন ভূপেন হাজারিকা। লেখক : বিশ^বিদ্যালয় পরীক্ষক ও কলামিস্ট




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]