• প্রচ্ছদ » » যদি পুরুষ হন তাহলে একটা শাড়ির কথাই বারবার মনে পড়বে আপনার, কামনার শাড়ি, রহস্যের শাড়ি, খুঁতযুক্ত শরীর ঢেকেছিলো যা


যদি পুরুষ হন তাহলে একটা শাড়ির কথাই বারবার মনে পড়বে আপনার, কামনার শাড়ি, রহস্যের শাড়ি, খুঁতযুক্ত শরীর ঢেকেছিলো যা

আমাদের নতুন সময় : 08/09/2019

আনোয়ারা আল্পনা

শাড়ি বিষয়ক যেকোনো আলোচনায় যে শাড়ির কথা বিসমিল্লাহতে আসবে সেটা হলো দ্রৌপদীর শাড়ি। বুদ্ধদেব বসুর একটা কবিতা আছে এ নামে… শেষ লাইন মনে হয় এ রকম… অসম্ভব দ্রৌপদীর/অন্তহীন শাড়ি।
আপনি যদি নারী হন তবে শাড়ি শব্দটা শুনলেই বালিকাবেলায় দাদী-নানীর নতুন শাড়ি শখ করে পরে, মাঢ় ধুয়ে নরম করে দেয়ার কথা মনে পড়বে। প্রথমবার শাড়ি পরার পর বাবার চোখের অশ্রæ চিকচিক করার কথা মনে পড়বে… মেয়ে বড় হয়ে পর হয়ে যাবে, শাড়ির কারণে, সেই অশ্রæ অনেক পরে বিয়ের দিন মনে পড়বে আপনার। তারপর হয়তো মনে পড়বে মায়ের শাড়ির কথা, শৈশবের সে শাড়ির গন্ধ বড় হয়েও কোনোদিন ভুলতে পারবেন না আপনি। আর বাবাটা যদি আগে মরে যায়, তাহলে মায়ের রঙিন শাড়ি সাদা হতে দেখে, যে কষ্ট পেয়েছিলেন, সেই কষ্টে আপনার পায়ের তলার মাটির রং চিরতরে বদলে গিয়েছিলো মনে পড়বে। আপনি যদি নারী হন আহা বোনে বোনে শাড়ি নিয়ে যতো মান-অভিমান সব মনে পড়বে আপনার। বিয়ের দিনে বড় বোনের চলে যাওয়া দেখে সব রাগ গিয়ে পড়েছিলো, লাল শাড়িটার উপর, মনে পড়বে। আপনি যদি নারী হন তাহলে প্রেমিকের উপহার দেয়া প্রথম শাড়িটার রং কোনোদিন ভুলতে পারবেন না। সেই শাড়ি পরে প্রথমবার সামনে গেলে, সে লজ্জায় চোখ তুলে তাকাতে পারেনি, মনে পড়বে আপনার। শাড়ির ভাঁজে ভাঁজে যে রহস্য লুকিয়ে থাকে, কামনার আগুন লুকিয়ে থাকে সেটা বুঝতে অনেক সময় লাগবে আপনার। আপনি যদি নারী হন তাহলে বাড়িতে আগুন লাগলে প্রিয় মানুষগুলো নিরাপদে আছে জানার পর আপনি নিজের জীবনবাজি রেখে বিয়ের শাড়িটাই প্রথমে বাঁচাবেন। সেই আগুনের কালেও আপনার মনে পড়বে এই শাড়িতে আপনাকে এতো সুন্দর লাগছিলো যে, সেটা টেনে খুলে ফেলে সৌন্দর্য নষ্ট করতে চায়নি আপনার যুবক বর। ধৈর্য হারিয়ে শেষে আপনাকেই এগিয়ে যেতে হয়েছিলো। আপনি যদি দেশ প্রেমিক নারী হন তাহলে মায়ের দেয়া মোটা কাপড় মাথায় তুলে নে রে ভাই গান শুনে আপনার খদ্দরের শাড়ির কথাই মনে পড়বে। মনে পড়বে সাদাকালো ওই ছবিটা, রাইফেল কাঁধে মিছিলে হেঁটে যাওয়া শাড়ি। আপনি যদি নারী হন কন্যাকে প্রথম শাড়ি পরতে দেখে সুখে ও বেদনায় একসঙ্গে কেঁপে উঠবেন আপনি। আর আপনি যদি পুরুষ হন তাহলে একটা শাড়ির কথাই মনে পড়বে আপনার, বারবার মনে পড়বে, কামনার শাড়ি, রহস্যের শাড়ি, খুঁতযুক্ত শরীর ঢেকেছিলো যা। কেন আমরা ভেবে নিই, নারী আর নরে একরকম দৃষ্টিতে দেখবে? দেশের এক নম্বর পত্রিকার সাহিত্য পাতা না হয়ে, অধ্যাপকের শাড়ির মতো কোনো লেখা যদি কোনো ঝাঁকড়া চুলের কবির ফেসবুক স্ট্যাটাস হতো, তাহলে একটা হা হা রিয়্যাক্ট দিয়ে চলে যেতাম না? আর অধ্যাপক সাহেবের যদি এসব কথা এতোই বলতে ইচ্ছা করতো, তাহলে তিনি একটা গল্প লিখতে পারতেন, মনের কথা যতো বসিয়ে দিয়ে পারতেন, কোনো চরিত্রের মুখে, আমরা তাহলে সাহিত্য নিজ দায়িত্বে বুঝে নিতাম না? কিংবা শাড়ি নিয়ে কেউ যদি লিখে ফেলতো একটা কবিতা, একই বক্তব্যে? তাহলে সেই কবিতা পড়ে প্রশ্রয়ের হাসি তো হাসা যেতো। যেতো না? ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]