• প্রচ্ছদ » সাবলিড » খলেদা জিয়ার পরিবারের নামে ৪৫ একর খাস জমির মামলা, দ্রুত আপিল শুনানির আবেদন


খলেদা জিয়ার পরিবারের নামে ৪৫ একর খাস জমির মামলা, দ্রুত আপিল শুনানির আবেদন

আমাদের নতুন সময় : 09/09/2019


নূর মোহাম্মদ : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পরিবারের নামে বন্দোবস্তের মাধ্যমে বরাদ্দ হওয়া মাতাসাগরের প্রায় ৪৬ একর জমি সংক্রান্ত মামলার আপিল দ্রুত শুনানির আবেদন করা হয়েছে। গতকাল রোববার দিনাজপুরের জেলা প্রশাসকের পক্ষে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট এসি ল্যান্ড মো. আরিফুল ইসলাম এই আবেদন করেন।
সহকারি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী বশির আহমেদ সাংবাদিকদের জানান, এটা সরকারের সম্পত্তি। সাবেক আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক দিনাজপুরের যুগ্ম জেলা জজ হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে অতি দ্রুত সময়ে রায় দিয়ে তাদের দখলে হস্তান্তর করেন। ২০০৪ সালে এই সম্পত্তি নিয়ে মামলা হয় এবং ২০০৫ সালে রায় হয়ে যায়। এত অল্প সময়ে রায় ঘোষণাটি ছিল অনভিপ্রেত। এই রায়ের পর হাইকোর্টে আপিল হলে মামলার এক্সিবিট (প্রদর্শিত নথিপত্র) নিয়ে যাওয়ায় মামলটা তৈরি হচ্ছিল না।
দিনাজপুরের মাতাসাগরের ৪৫.৯৪ একর খাসজমি বরাদ্দ হয় খালেদা জিয়ার বাবার মালিকানাধীন দিনাজপুর লাইভস্টক অ্যান্ড পোলট্রি ফার্মের নামে। জিয়াউর রহমানের আমলে বন্দোবস্তের মাধ্যমে বরাদ্দটি নেয়া হয়। খালেদা জিয়ার বাবার মৃত্যুর পর তার ভাই-বোন এবং একপর্যায়ে তার মা পোলট্রি ফার্মের ব্যবসায়িক শেয়ার বিক্রি করে দেন। সর্বশেষ ওই পোলট্রি ফার্মের শেয়ারের মালিকানা দাঁড়ায় প্রয়াত মন্ত্রী ফজলুর রহমান ও তার ভাই মিজানুর রহমানের।
এদিকে খাসজমিটি সরকারের নামে রেকর্ড হয়েছে জানতে পেরে নিজেদের নামে স্বত্ব ঘোষণার দাবিতে মামলা করেন মিজানুর রহমান ও ফজলুর রহমান। ২০০৫ সালের ১১ এপ্রিল ওই জমির স্বত্ব তাদের দুজনের নামে ঘোষণা করে রায় দেন দিনাজপুরের প্রথম যুগ্ম জেলা জজ আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল হক। পরে ওই রায়ের বিরুদ্ধে ২০০৯ সালের ১৩ জানুয়ারি আপিল করে সরকার। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]notunshomoy.com