ট্রাম্পের নীতি মানতে চাইলেও তার মতো বিশ^স্ত অনুসারী পাচ্ছেন না বরিস জনসন

আমাদের নতুন সময় : 09/09/2019


আসিফুজ্জামান পৃথিল : মাসের পর মাস ধরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা যতটা বিশ^স্ততা দেখিয়েছেন গত এক মাসে বরিস জনসনের ভাগ্যে সে পরিমাণ বিশ^স্থতা জোটেনি। ফলে রাজনৈতিক বিপর্যয়ের মুখে পরেছেন এই দক্ষিণপন্থী নেতা। এ কারণে এটি স্পষ্টতই প্রতিয়মান, উগ্র ডানপন্থার প্রতি মার্কিন জনগনের যে ভালোবাসা, ব্রিটিশ জনগনের তার কিয়দংশও নেই। নিউইয়র্ক টাইমস।
গত কয়েক সপ্তাহে পার্লামেন্ট স্থগিতকরণকে কেন্দ্র করে তীব্র সমালোচনা আর রাজনৈতিক বিদ্রোহের মুখে পরেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তার দল কনজারভেটিভ পার্টির জেষ্ঠ্য নেতারা রীতিমত তার বিরুদ্ধে বিদ্রোহের দামামা বাজিয়েছেন। বরিস শেষ পর্যন্ত নিজের উগ্রপন্থী আদর্শ টিকিয়ে রাখতে লড়াই করে যাচ্ছেন। তবে কতোদিন তা পারবেন সেটা বলা কঠিন। এদিক দিয়ে বেশ শান্তিতেই আছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এখন পর্যন্ত অজ¯্র বিরোধিতার মুখামুখি হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। কিন্তু কোনোটাই টিকে যাবার মতো জোরালো ছিলো। এছাড়াও নিজ দল এবং নিজের মন্ত্রিসভার পক্ষ থেকে কোনো ধরণের বিদ্রোহের মোকাবেলা করতে হয়নি, যা করতে হয়েছে বরিসকে।
এর পেছনে প্রধান কারণ ব্রিটিশ গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য ও রাজনৈতিক সংস্কৃতি। ব্রিটিশ রাজনীতিবীদদের গণতন্ত্র এবং পার্লামেন্টের প্রতি শ্রদ্ধা প্রচুর। এমনকি তা দলীয় স্বার্থের চেয়েও অনেক বড়। যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেত্রে বিষয়টি এমন নয়। তাদের কাছে প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্ত সবচেয়ে মূল্যবান। বরিসের অনুসারীদের বিশ^স্ততাও তাই যতটা বরিসের প্রতি তার চেয়ে অনেক বেশি পার্লামেন্টের প্রতি। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]