অমিত শাহ বললেন, ভারত থেকে প্রত্যেক অনুপ্রবেশকারীকে তাড়ানো হবে

আমাদের নতুন সময় : 10/09/2019


আসিফুজ্জামান পৃথিল : ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ হুমকি দিয়ে বলেছেন, শুধু আসাম নয় পুরো ভারত থেকেই অনুপ্রবেশকারীদের খুঁজে খুঁজে বের করে তাড়িয়ে দেয়া হবে। তিনি এও বলেন, এই অনুপ্রবেশকারীরা বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের নাগরিক। এদের মধ্যে কিছু শ্রেণীর ‘বাংলাদেশি ও পাকিস্তানিকে’ বের না করে দিয়ে বরং নাগরিকত্ব দেয়া হবে। আসামের রাজধানী গুয়াহাটির এক জনসভায় এ কথা বলেন অমিত শাহ। এনডিটিভি, ইয়ন নিউজ।
আসামের জাতীয় নাগরিক পঞ্জি বা এনআরসি নিয়ে তুমুল সমালোচনা চলছে। এই তালিকা থেকে বাদ পড়েছে ১৯ লাখ মানুষের নাম। পৃথিবীর ইতিহাসে একসঙ্গে এর আগে এতো মানুষ কখনই রাষ্ট্রহীন হননি। এই সমালোচনার মধ্যেই বিজেপি প্রধান অমিত শাহ বললেন, পুরো ভারতেই এই ধরণের নানা ব্যবস্থার মাধ্যমেই খুঁজে নেয়া হবে তথাকথিত অনুপ্রবেশকারীদের। গুয়াহাটিতে অমিত বলেন, ‘সমস্ত দেশই নাগরিক পঞ্জি নিয়ে ভয় পাচ্ছে। আসাম মনে করছে নাগরিক পঞ্জি ভুল। ছোট রাজ্যগুলি ভাবছে সেখানেও এমন হবে। আমি আপনাদের নিশ্চিত করছি, কেবল আসাম নয়, আমরা চাই গোটা দেশই বেআইনি অনুপ্রবেশকারীদের থেকে মুক্ত হোক। আমরা একটা প্ল্যান তৈরী করে ফেলেছি। আমরা সব রাজ্যেই আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনব।’ তিনি জানান, সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে একটি বিল আনার যার দ্বারা বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের কিছু সংখ্যক ‘নাগরিককে’ ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে, তাদের কাছে বৈধ নথি না থাকলেও।
অমিত শাহ জানান, কেন্দ্র সরকারের কোনও পরিকল্পনা নেই সংবিধানের ৩৭১ অনুচ্ছেদ বাতিল করে উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি থেকে বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়ার। তিনি বলেন, ‘আমি পরিষ্কার করে বলতে চাই ৩৭০ ও ৩৭১ অনুচ্ছেদের মধ্যে কোনও সম্পর্ক নেই। নাগরিক বিল ৩৭১ ধারায় কোনও সমস্যা তৈরি করবে না। ভারত সরকার এই নিশ্চয়তা দিচ্ছে।’ জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিল করে সেখানকার বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয়ার পর নাগাল্যান্ডের মতো উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলিতে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে সেখানে থাকা ৩৭১ অনুচ্ছেদ নিয়ে। আসামের নাগরিক পঞ্জি থেকে ১৯ লাখ লোকের নাম বাদ গিয়েছে। আসামকে আগামী ছয় মাসের জন্য ‘অশান্ত অঞ্চল’ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহ রোববার আসামে গিয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম অমিত শাহ উত্তর-পূর্ব ভারতের কোনও রাজ্যে গেলেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]