• প্রচ্ছদ » শেষ পাতা » ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে চালু হয়েছে নতুন ডে কেয়ার সেন্টার


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে চালু হয়েছে নতুন ডে কেয়ার সেন্টার

আমাদের নতুন সময় : 10/09/2019


আরিফা রাখি : বর্তমান সমাজে একক পরিবারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেশিরভাগ পরিবারেই পিতা-মাতা দুজনে কর্মজীবী। ঢাকার মত বড় শহরগুলোতে শিশু সন্তানকে কার কাছে রেখে কাজে বের হবেন কর্মজীবী বাবা-মায়ের কাছে সেটাই একটা বড় চ্যালেঞ্জ। ফলে সন্তানের স্বাস্থ্য সচেতনতা ও নিরাপত্তার দুশ্চিন্তায় ভোগেন তারা। সেই সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদে গত রোববার ১ সেপ্টেমবর চালু হয়েছে একটি ডে কেয়ার সেন্টার।
সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম বলেন, ডে কেয়ার প্রতিষ্ঠায় আমার ব্যাক্তিগত অনুপ্রেরণা আছে। তাছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক অনুপ্রেরণাও আছে। আমি সবসময় নারী বিষয়ক ও ক্ষমতায়নে কাজ করি এবং শিক্ষকতার মধ্য দিয়েও আমি অনুধাবন করতে পেরেছি যে, বর্তমান সমাজে একক পরিবারের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। বেশিরভাগ পরিবারেই পিতা-মাতা দুজনে কর্মজীবী। তাদের বাচ্চাকে কে দেখবে। তারা সন্তানকে এমন একটি জায়গায় রেখে যেতে চায় যেখানে তাদের নিরাপদ, স্বাস্থ্যকর পরিবেশ, তাদের গঠনের ক্ষেত্রে যা যা প্রয়োজন মনস্তাত্ত্বিক, সামাজিক সেগুলোর দিকেও দৃষ্টি রাখতে চাচ্ছে।
তিনি আরো বলেন, এখানে ১০ থেকে ১২টির বেশি শিশু সন্তান রাখা সম্ভব না। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের শিক্ষকরা বেশি প্রাধান্য পাচ্ছে। তাদের সন্তানকে রেখে যাওয়ার পর যদি কোনো জায়গা থেকে তখন আমরা কর্মকর্তাদের শিশু সন্তান রাখার জায়গা দিচ্ছি। যদি এমন কোনো মা থাকে যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রী তখন ১টি বা ২টি বাচ্চার ক্ষেত্রে আমরা ছাড় দিতে পারি তা নির্ভর করবে জায়গা আছে কি না।
এখানে শিশুদের দেখাশুনা করার জন্য ৩ জন কর্মী রয়েছে। রয়েছে শিশুদের খেলাধুলা করার উপকরণ। তাছাড়া শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে অধ্যাপক সাদেকা হালিম সার্বক্ষণিক সিসিটিভি ক্যামেরা দ্বারা পর্যবেক্ষণ করেন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আরও দুটি ডে কেয়ার সেন্টার রয়েছে। রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে আগে থেকেই দুটি ডে কেয়ার সেন্টার রয়েছে। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে তৃতীয় ডে কেয়ার সেন্টার চালু হল। সম্পাদনা : ওমর ফারুক




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]