• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » বৃষ্টিতেও মান রক্ষা হলো না সাকিবদের অস্ট্রেলিয়াকে ছুঁয়ে ফেললো আফগানিস্তান


বৃষ্টিতেও মান রক্ষা হলো না সাকিবদের অস্ট্রেলিয়াকে ছুঁয়ে ফেললো আফগানিস্তান

আমাদের নতুন সময় : 10/09/2019


এল আর বাদল : আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে একমাত্র টেস্টে টাইগার সেনারা এমন পারফরমেন্স দেখিয়েছে যে খেলা শেষ হওয়ার একদিন আগেই নিশ্চিত হারের জানান দিয়েছিলো। গতকাল শেষ দিনে হারের ষোলকলা পূর্ণ করেই মাঠ ছাড়লো স্বাগতিক বাংলাদেশের ওরা ১১ জন। শেষ বিকেলে রশিদ খানদের কাছে ২২৪ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত হয় সাকিব বাহিনী।
বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ঐতিহাসিক জয় নিয়ে ক্রিকেটের অভিজাত সংস্করণে তিন ম্যাচের দুটিতেই এগিয়ে গেলো আফগানিস্তান। লংগার ভার্সনে এ কীর্তি আছে কেবল অস্ট্রেলিয়ার। অভিষেক টেস্টে ভারতের কাছে পরাজিত হয় নবীন দলটি। তবে পরের ম্যাচেই ঘুরে দাঁড়ায় তারা। দ্বিতীয় টেস্টে আয়ারল্যান্ডকে হারান কাবুলিওয়ালারা। এই কীর্তি দিয়ে বিশে^র অন্যতম শক্তিধর টেস্ট দল অস্ট্রেলিয়াকে ছুঁয়ে ফেললো আফগানিস্তান।
চট্টগ্রাম টেস্টের চতুর্থ দিনে ৬ উইকেট হারিয়ে গতকাল শেষ দিনের খেলা শুরু করা বাংলাদেশের জেতার আর কোনো আশা ছিলো না। ড্র করতে হলেও দরকার ছিলো বৃষ্টির সহায়তা। সেটা পেয়েছিলো বাংলাদেশ। শেষ দিনে বৃষ্টির বাধায় প- হয়ে যায় প্রথম সেশনের পুরোটা। দ্বিতীয় দ্বিতীয় সেশনে মাঠে নেমে মাত্র ১৩ বল খেলার পর আবারো শুরু হয় বৃষ্টি। বৈরী আবহাওয়া ঠিকই ডাক শুনেছিলো, কিন্তু নিজেদেরও তো কিছু করতে হবে। শেষ সেশনে বৃষ্টি থামার পর দিনের খেলা বাকি ছিলো মাত্র ১৮.২ ওভার। কিন্তু মাঠে নেমেই হতাশ করেন দলের সবচেয়ে বড় ভরসা সাকিব আল হাসান। বৃষ্টির পর জহির খানের প্রথম বলেই জাজাইয়ের হাতে ক্যাচ দেন ৪৪ করা সাকিব।
ম্যাচের ১২ ওভার বাকি থাকতে মেহেদী মিরাজের ক্যাচ ছেড়ে দেন শর্ট লেগে ফিল্ডিং করার শহিদী। কিন্তু এক ওভার বাদেই রশিদ খানের ঘুর্ণিতে কুপোকাত হতে হয় তাকে। রিভিউ নিয়েও লেগ বিফোর থেকে রক্ষা হয়নি। তাইজুল ইসলাম কাটা পড়েন দুর্ভাগ্য আর আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে। স্পষ্ট ইনসাইড এজ হলেও আফগান ফিল্ডারদের জোরালো আবেদনে আঙুল তুলে দেন আম্পায়ার। মেহেদী মিরাজ রিভিউ অপচয় করে যাওয়ায় আর রিভিউ নেয়ার সুযোগও ছিলো না বাংলাদেশের।
শেষ উইকেটে নাঈম হাসান যখন ক্রিজে আসেন তখন খেলা বাকি ৭.৩ ওভার। ৫ ওভার বাকি থাকতে রশিদ খানের বলে মিসটাইমিং করে ক্যাচ তুলে দিয়েও রক্ষা পেয়ে যান সৌম্য সরকার। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। সেই রশিদের বলেই কাটা পড়তে হয় সৌম্যকে। আর রশিদের হাতেই লেখা হয় আফগানদের গৌরবের ইতিহাস। প্রথম ইনিংসে ২০৫ রানে অল আউট হওয়া বাংলাদেশের সামনে শেষ দিনে যখন টার্গেট ৩৯৮, ম্যাচটা হয়তো সেখানেই হেরে গেছে টাইগাররা। তার ওপর আবার দ্বিতীয় ইনিংসের ১৩৬ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর জেতার সম্ভাবনা তো শেষ হয়েই যায়, সঙ্গে শঙ্কা জাগে লজ্জার হারের। শেষ দিনে বৃষ্টিতে ড্রয়ের আশা জাগলেও নিজেদের ন্যূনতম কাজটুকুও করতে ব্যর্থ হন শেষ চার ব্যাটসম্যান। ফলে দুটি টেস্ট খেলা আফগানদের বিরুদ্ধে বড় ব্যবধানে হারের লজ্জায় মাঠ ছাড়লেন বাংলাদেশের ওরা ১১ জন। সম্পাদনা : রেজাউল আহসান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]