• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » নেতানিয়াহুর জর্ডান উপত্যকা দখলে নেয়া ঘোষণার তীব্র নিন্দা আরব দেশগুলোর, ওআইসির জরুরি বৈঠক


নেতানিয়াহুর জর্ডান উপত্যকা দখলে নেয়া ঘোষণার তীব্র নিন্দা আরব দেশগুলোর, ওআইসির জরুরি বৈঠক

আমাদের নতুন সময় : 12/09/2019


লিহান লিমা : ইসরায়েলের প্রেসিডেন্ট বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর জর্ডান উপত্যকা দখলের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন আরব দেশগুলোর নেতারা। বুধবার এক নির্বাচনি প্রচারণায় নেতানিয়াহু বলেন, আবার ক্ষমতায় আসতে পারলো জর্ডান উপত্যকা এবং উত্তর ডেড সি(মৃত সাগর) এলাকাকে ইসরায়েলি সার্বভৌমত্বের অধীনে আনবেন তিনি। বিবিসি
নেতানিয়াহুর এই মন্তব্যের পর জর্ডান, তুরস্ক এবং সৌদিআরব একযোগে এই মন্তব্যের নিন্দা জানিয়েছে। সৌদিআরব এই ঘোষণাকে ‘ভয়ঙ্কর’ মন্তব্য করে ওআইসির ৫৭ সদস্য রাষ্ট্রের জরুরী বৈঠক ডেকেছে। আরব লীগ জানায়, তার পরিকল্পনা ‘ভয়াবহ’ এটি আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন এবং শান্তির প্রক্রিয়াকে পুরোপুরি খর্ব করবে। ফিলিস্তিনের উচ্চপদস্থ কর্মকতা হানান আশওয়ারি বলেন, ‘এটি আন্তর্জাতিক শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি। এই ঘোষণা ফিলিস্তিনির জনগণের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ ঘোষণার শামিল এবং আন্তর্জাতিক নীতির পুরোপুরি লঙ্ঘন।’ জর্ডানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চেভসুগলো নির্বাচনের পূর্বে ‘অবৈধ, বেআইনী এবং আগ্রাসী’ বার্তা দেয়ার জন্য নেতানিয়াহুর সমালোচনা করেন। তিনি এই মন্তব্যকে ‘বর্ণবাদী’ বলে উল্লেখ করেন। ফিলিস্তিনের প্রধান সমঝোতাকারী সায়েব এরকাত বলেন, ‘এই ধরনের মন্তব্য পুরোপুরি অবৈধ। নেতানিয়াহুর প্রস্তাব শান্তির যেকোন প্রক্রিয়াকে সমাধিতে পরিণত করবে।’
১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর থেকে ইসরায়েল পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম, গাজা ও সিরিয়ার গোলান মরুভূমি দখল করে রেখেছে। আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি না পেলেও দেশটির পূর্ব জেরুজালেম ও গোলান মরুভূমিতে নিজেদের সার্বভৌমত্ব দাবী করেছে। পূর্বের মার্কিন প্রশাসনের নীতিকে উপেক্ষা করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন এই দুইটি স্থানে ইসরায়েলের আধিপত্যের স্বীকৃতি দিয়েছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]