মিন্নির উন্নত চিকিৎসা দরকার জানালেন পরিবারের সদস্যরা

আমাদের নতুন সময় : 12/09/2019

সাগর আকন : রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী থেকে আসামি বনে যাওয়ার পর জামিনে মুক্ত রিফাতের স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি। কারাগারে থাকা ও সাম্প্রতিক ঘটনায় তিনি শারীরিক ও মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। মিন্নির পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। কিন্তু কিছুদিন পর মামলার তারিখ থাকায় তাকে ভালো কোনো হাসপাতালে ভর্তি করা যাচ্ছে না।
মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর জানান, আগে মিন্নি ছিল সদা হাস্যোজ্জ্বল, চঞ্চল ও স্বজনের সঙ্গে সদালাপী। অনেক স্বজনের মাঝেও এখন সেই মিন্নি ভুগছেন একাকীত্বে। তিনি আরো বলেন, দুই হাঁটুতে কালো দাগ রয়েছে মিন্নির। হাঁটুর ব্যথায় হাঁটতে পারে না সে। খেতে চায় না কিছুই। নিজের ঘরে সবসময় চুপচাপ থাকে, কাঁদে। ঘুমের মধ্যেও কেঁদে ওঠে, চিৎকার করে।
মোজাম্মেল হোসেন বলেন, মিন্নি অনেক অসুস্থ। তার উন্নত চিকিৎসা দরকার। আমরা মিন্নির আইনজীবীর পরামর্শ নিয়েছি। কয়েকদিন পর রিফাত হত্যা মামলার ধার্য তারিখ রয়েছে। ওই তারিখে মিন্নিকে আদালতে হাজির হতে হবে।
মিন্নির চাচা আবু সালেহ বলেন, মিন্নির জামিনে কারামুক্ত থাকার ব্যাপারে আদালতের কিছু নির্দেশনা রয়েছে। আমরা সে সব নির্দেশনা মেনে অতি দ্রুত মিন্নির উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করব। মিন্নির স্বাভাবিক জীবনযাপন ও চিকিৎসায় ব্যাঘাত ঘটে এমন কাজ থেকে উৎসুক মানুষকে বিরত থাকার অনুরোধ জানাই আমরা।
আইনজীবী মাহবুবুল বারী আসলাম বলেন, তার অসুস্থতার বিষয়ে উচ্চ আদালতে মিন্নির আইনজীবী জেড আই খান পান্নার সঙ্গে কথা বলেছি। চিকিৎসার জন্য আমি মিন্নির বাবাকে পরামর্শ দিয়েছি। আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর রিফাত হত্যা মামলার ধার্য তারিখ রয়েছে। তার আগেই মিন্নিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যে কোনো জায়গায় নেয়া যাবে।
বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে তত্ত্বাবধায়ক মো. সোহবার উদ্দীন বলেন, তার অল্প বয়সের জীবনে যা ঘটেছে মানসিকভাবে ভেঙে পড়াটা স্বাভাবিক। সম্পাদনা : মুরাদ হাসান ও রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]