পাবনায় দলবদ্ধ ধর্ষণের পর থানায় বিয়ে মামলায় আসামি ওসমান গ্রেপ্তার

আমাদের নতুন সময় : 14/09/2019

কালাম আজাদ : গতকাল শুক্রবার সকালে পাবনা শহরের সিংগা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত ওসমান আলী সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নের গাঁতি সাতমাইল গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে।
পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মো. আছাদুজ্জামান গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ শহরের সিংগা এলাকা থেকে মামলার তিন নম্বর আসামী ওসমান আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে মামলা চার আসামী রাসেল আহমেদ, শরিফুল ইসলাম ঘন্টু, সঞ্জু হোসেন ও জাকির হোসেন ড্রাইভারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার এজাহারভুক্ত ৫ আসামীকেই গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়েছে।
ওসি (তদন্ত) আরো জানান, এরই মধ্যে আদালতে আসামী রাসেল আহমেদ ও জাকির হোসেন ড্রাইভার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বাকিটার তদন্ত চলছে। প্রয়োজন হলে আসামীদের রিমান্ডে নেয়া হবে। আসামীদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
২৯ আগষ্ট দিবাগত রাত থেকে আসামীরা তিন সন্তানের জননী জনৈক গৃহবধূকে ৪ দিন আটকে রেখে দলবদ্ধ ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে নির্যাতিতা পালিয়ে সদর থানায় আশ্রয় নেয় এবং অভিযোগ করেন। কিন্তু তার অভিযোগ আমলে না নিয়ে পুলিশ ধর্ষক রাসেলের সাথে তাকে বিয়ে দেন। এঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে প্রচার হওয়ায় জেলা পুলিশের নির্দেশে ৯ সেপ্টেম্বর মেয়েটি বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে মামলা করেন। এ ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) ফিরোজ আহমেদকে প্রধান করে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
এদিকে পুরো বিষয়টি তদন্তের জন্য মন্ত্রি পরিষদের নির্দেশে পাবনা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়। পাবনার অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট (এডিএম) জাহিদ নেওয়াজকে প্রধান করে গঠিত তদন্ত কমিটিতে আরো রয়েছে পাবনা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) ইবনে মিজান ও জেলার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. একেএম আবু জাফর। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর এর মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদর দাখিল করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
পাবনায় গৃহবধূকে ধর্ষণের পর থানার ভেতরে ঐ গৃহবধূকে ধর্ষকদের এক জনের সাথে বিয়ে দেওয়ার ঘটনায় পাবনা পুলিশের গঠিত তদন্ত কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুল হককে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত এবং উপপরিদর্শক (এসআই) একরামুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]