আমাজনের উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রের ১০ কোটি ডলারের তহবিল গঠন

আমাদের নতুন সময় : 15/09/2019


শোভন দত্ত : যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রাজিল বেসরকারিভাবে আমাজনের উন্নয়নে কাজ করবে। শুক্রবার ওয়াশিংটনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই সিদ্ধান্তে পৌছে দেশ দুইটির প্রতিনিধিবৃন্দ। এই বৈঠক থেকে জীববৈচিত্র রক্ষার্থে বেসরকারিভাবে ১০ কোটি মার্কিন ডলারের তহবিল গঠন করা হয়। বিবিসি
ব্রাজিলের পররাষ্ট্র মন্ত্রী আর্নেস্টো আরাউজো বলেন, এই বনকে রক্ষার স্বার্থে অর্থনৈতিক উন্নয়ন চালু রাখা ছাড়া কোন উপায় নেই। আমাজনের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার বিভিন্ন প্রক্রিয়া নিয়ে ব্রাজিল প্রশাসনের যে সমালোচনা তারও কড়া জবাব দিয়েছেন তিনি। সাংবাদিকদের তিনি বলেছেন, সবাই ভেবেছিল এই আগুন নিয়ন্ত্রণে ব্রাজিল ব্যর্থ হবে।
এ অঞ্চল রক্ষায় কোন ভূমিকা রাখতে না পারায় ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছেন।
বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, আমাজনের অধিকাংশ আগুনই মানবসৃষ্ট। মানুষ বনভূমি পরিষ্কার করে সেখানে ফসল ফলানোর জমি তৈরি করছে। এছাড়াও খনি সন্ধান, জ্বালানি সংগ্রহ, চাষাবাদ ইত্যাদি কারণে অ্যামাজন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বলে পরিবেশবাদীরা দাবি করেছেন। বনের ভেতর দিয়ে তৈরি করা নতুন রাস্তা অনেক মানুষকে বনের ভেতরে বসতি স্থাপনে উৎসাহিত করছে। বন পরিষ্কার করার প্রভাব পড়ছে পরিবেশের উপর আর সেখান থেকেই বন ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। প্রেসিডেন্টের পরিকল্পনা অনুসারে এইসব হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সমালোচকরা।
পরিবেশবাদীরা বলছেন, এ বন রক্ষার সবচেয়ে ভালো উপায় হলো আদিবাসীদের হাতেই এই বনের কর্তৃত্ব ছেড়ে দেওয়া। ব্রাজিলের পররাষ্ট্র মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, একসাথে কাজ করার মাধ্যমে আমরা আমাজন অঞ্চলের উন্নয়ন করতে পারি, এই বনকে যে কোন ধরনের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে পারি। তাই আমাদের নতুন উদ্যোগ দরকার, যেখানে জনগণের কর্মক্ষেত্র তৈরি হবে, রাজস্ব তৈরি হবে। তাই আমাজনের উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে একযোগে কাজ করা খুব গুরুত্বপূর্ণ।
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, এই জীববৈচিত্র বিনিয়োগ তহবিল আমাজন অঞ্চলে ব্যবসায়ের প্রসারে ভূমিকা রাখবে। দুইদেশের প্রেসিডেন্ট পর্যায়ে বৈঠকের মাধ্যমে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল তার অংশ হিসেবেই ১০ কোটি মিলিয়ন ডলারের এই তহবিল পেতে যাচ্ছে ব্রাজিল।
গত সপ্তাহে বলিভিয়া, ব্রাজিল, কলম্বিয়া, ইকুয়েডর, গায়না, পেরু এবং সুরিনাম একটি চুক্তিতে তারা অ্যামাজনের উন্নয়নে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]