• প্রচ্ছদ » প্রথম পাতা » এনআরসি থেকে বাদ পড়াদের বাংলাদেশে ফেরত প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গেলেন ভারতের পররাষ্ট্র মুখপাত্র


এনআরসি থেকে বাদ পড়াদের বাংলাদেশে ফেরত প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গেলেন ভারতের পররাষ্ট্র মুখপাত্র

আমাদের নতুন সময় : 15/09/2019

 

তাপসী রাবেয়া : আসামে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) থেকে যাদের নাম বাদ পড়েছে তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে কিনা, এই প্রশ্নের সরাসরি জবাব এড়িয়ে গেলেন দিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রভীশ কুমার। এ বিষয়ে এক নির্দিষ্ট প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেছেন, ‘ভবিষ্যতে কী ঘটবে, তা নিয়ে আমি এখনই কিছু বলতে রাজি নই!
প্রকৃতভাবে ক্ষমতাসীন দল বিজেপির শীর্ষ নেতাদের অনেকেই যদিও বলেছেন, এনআরসি থেকে যাদের নাম বাদ পড়বে, তাদের বাংলাদেশেই ডিপোর্ট করা হবে। তবে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কিন্তু এতদিন সেই ধরনের মন্তব্য থেকে নিজেদের দূরত্ব বজায় রেখেই চলেছে। কিন্তু এবার তাদের কথা থেকে অনেকটাই পরিষ্কার, ভারত এই লাখ লাখ কথিত ‘অবৈধ বিদেশি’কে বাংলাদেশে পাঠানোর চেষ্টা করবে কি করবে না এই নিশ্চয়তা তারা আর দিতে পারছে না।
ভারত সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এনআরসি ইস্যুতে ভীষণ আগ্রাসী ও আক্রমণাত্মক অবস্থান নিয়েছেন, এ কথা অজানা নয়। তিনি এক্ষেত্রে কোনও কূটনৈতিক সৌজন্যের ধার না ধারলেও ক্যাবিনেটে তার সতীর্থ, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর কিন্তু এই প্রশ্নে একটা ভারসাম্য বজায় রেখেই চলার চেষ্টা করছেন। এনআরসি নিয়ে বাংলাদেশের উদ্বিগ্ন হওয়ার তেমন কিছু নেই, বরং এই বার্তাই তিনি ক্রমাগত ঢাকাকে দিতে চেয়েছেন। কিন্তু এখন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বক্তব্য থেকে বোঝা যাচ্ছে, তাদের ওপরও সম্ভবত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চাপ বাড়ছে। যে কারণে এই লাখ লাখ মানুষকে কখনোই বাংলাদেশে পাঠানো হবে না এই কথাটা তারা কিছুতেই স্পষ্ট করে বলতে পারছেন না।
বৃহস্পতিবার বিকালে দিল্লির জওহর ভবনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব তথা মুখপাত্র রবীশ কুমারের নিয়মিত সাপ্তাহিক ব্রিফিংয়েই এই জিনিসটা স্পষ্ট হয়ে গেছে। প্রশ্নোত্তর পর্বে এনআরসির বাদ পড়া তথা অবৈধদের বাংলাদেশ পাঠানো হবে কিনা বা এবিষয় নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন বিষয়টি ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার তবে হাইকোর্ট, ট্রাইব্যুনাল পর্ব শেষ হলে ভবিষ্যতে কি হবে সেটা এখনই আলোচনার সময় আসে নি। কীভাবে এই সংকটের নিষ্পত্তি হবে তা নিয়ে বেশি কথা না বলাই ভালো ।
তবে তিনি বলেন, আমরা যেটুকু বুঝি তাতে বলতে পারি, এটা একটা ন্যায়সম্পন্ন ও স্বচ্ছ ফেয়ার অ্যান্ড ট্রান্সপারেন্ট) প্রক্রিয়া। আর ভবিষ্যতে কী হবে সেটা তো আগামী দিনেই নির্ধারিত হবে ফলে আমার কাছে এখন এ প্রশ্নের কোনও জবাব নেই।
কথাগুলো বলার সময় বেশ আমতা আমতা করতেও শোনা গেছে রভীশ কুমারকে। দৃশ্যতই তিনি নিজের অস্বস্তি গোপন করতে পারেননি। সরকারি মুখপাত্রের এই মন্তব্য থেকেই পরিষ্কার, এনআরসি বাতিলদের আগামী দিনে কখনোই বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর চেষ্টা হবে না , এই কথাটা তিনি কিছুতেই কবুল করতে চাচ্ছেন না।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]