• প্রচ্ছদ » সর্বশেষ » বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে মিরপুরে ও কাঁচপুরে পোশাক শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ


বকেয়া বেতন-ভাতার দাবিতে মিরপুরে ও কাঁচপুরে পোশাক শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

আমাদের নতুন সময় : 16/09/2019


সুজন কৈরী : রোববার সকাল ৮টা থেকে মিরপুর সনি সিনেমা হলের সামনের রাস্তায় তারা বিক্ষোভ করে জারা জিন্স নামের একটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা । এতে ওই সড়কসহ আশপাশের সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরে বিকেলে বিজিএমইএ ও পুলিশের অনুরোধে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নেয়।
এদিকে নারায়ণগঞ্জের কাঁচপুরে প্রতি মাসের ১০ তারিখে বেতন পরিশোধসহ তিন দফা দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে দেড় ঘণ্টা বিক্ষোভ করেছে কাঁচপুরের সিনহা ওপেক্স গার্মেন্টের শ্রমিকরা। ফলে রোববার সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ওই সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। সৃষ্টি হয় মহাসড়কের দুই পাশে তীব্র যানজটের।
ডিএমপির মিরপুর জোনের শাহ আলী থানার ওসি মো. সালাউদ্দিন মিয়া জানান, শ্রমিকরা প্রায় দিনভর বিক্ষোভ আর রাস্তা অবরোধ ছেড়ে বিজিএমইএ ও পুলিশের অনুরোধে গার্মেন্টে ফিরেছে। সেখানে বেতন-ভাতা পরিশোধের বিষয়ে বিজিএমইএ ও মালিক পক্ষকে নিয়ে সমঝোতার বৈঠক হয়। এটা একদিন বা দুই/তিন দিনও চলতে পারে। তবে আলোচনা ফলপ্রসু না হলেও শ্রমিকরা গার্মেন্টের ভেতরেই বিক্ষোভ করবেন। তারা আর রাস্তায় নামবেন না বলে জানিয়েছেন।
আর বেতন পরিশোধসহ তিন দফা দাবিতে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে টায়ার ও কাঠের গুঁড়ি জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে কাঁচপুরের সিনহা ওপেক্স গার্মেন্টের শ্রমিকরা। পরে পুলিশ লাঠিপেটা করে এবং টিয়ার শেল ছুড়ে বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।
বিক্ষোভকারীরা বলছেন, গত কয়েক মাস ধরে বিভিন্ন অজুহাতে গার্মেন্ট থেকে শ্রমিক ছাঁটাই করা হচ্ছে। শ্রম আইন অনুযায়ী ছাঁইটাইয়ের সময় তিন মাসের বেতন দেয়ার কথা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। এছাড়া মাতৃত্বকালীন ছুটিতে গেলে শ্রমিকদের ভাতা দেয়া হয় না এবং বেতন দিতে প্রতি মাসের ১৫ তারিখ পেরিয়ে যায়।
নারায়ণগঞ্জ শিল্প পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সৈকত এ শাহিন জানান, শ্রমিকদের বিক্ষোভে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশ তাদের কয়েক দফা বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু শ্রমিকরা তা উপেক্ষা করে সড়ক অবরোধ করে রাখে। পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করে, ফাঁকা গুলি ও টিয়ারসেল ছুড়ে শ্রমিকদের রাস্তা থেকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। শ্রমিকদের ছোড়া ইটের আঘাতে ৫ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তিনি আরো জানান, সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
অন্যদিকে পুলিশের লাঠিপেটায় অন্তত ২০ শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে আন্দোলনকারীদের দাবি। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]