ভাবমূর্তি ফেরানোই ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বের বড় চ্যালেঞ্জ

আমাদের নতুন সময় : 16/09/2019


সমীরণ রায় : বিভিন্ন অভিযোগের দায় মাথায় নিয়ে সরে যেতে হলো ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে। তারপরও সারাদেশে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম এ সংগঠনটি। নতুন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্য আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব নেবেন আজ। তবে দায়িত্ব নেয়ার সঙ্গে এরপর পৃষ্ঠা ২, সারি
(প্রথম পৃষ্ঠার পর) সঙ্গে তাদের ওপর আসবে প্রত্যাশার চাপ ও চ্যালেঞ্জ। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হারানো আত্মবিশ^াস ও গৌরব ফিরিয়ে আনাই হবে তাদের প্রধান দায়িত্ব।
গত ৭ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের এক সভায় ছাত্রলীগের নেতিবাচক কর্মকা- তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে তিনি কমিটি ভেঙ্গে দিতে উপস্থিত নেতাদের নির্দেশ দেন। এরপর থেকেই ছাত্রলীগের দুই নেতার ভবিষ্যৎ নিয়ে নানা আলোচনা শুরু হয়। সব কিছু ছাপিয়ে গত শনিবার রাতে আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সভায় এ আলোচনার অবসান ঘটে। শোভন-রব্বানীকে বিদায় দিয়ে সংগঠনটির সিনিয়র সহ-সভাপতি আল নাহিয়ান খান ও সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে দায়িত্ব দেয়ার সিদ্ধান্ত দেন প্রধানমন্ত্রী। তারা যাতে সম্মেলনের মাধ্যমে পরবর্তী নেতৃত্ব ঠিক করেন, সে কথাও বলেন তিনি।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগের দুই নেতার নতুন নেতৃত্বকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিতে হবে। ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত দুই নেতা পরবর্তী সম্মেলন না হওয়া পর্যন্ত সাংগঠনিক সব কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। এই কমিটির বাকি ১০ মাস মেয়াদে ছাত্রলীগের বিভিন্ন ইউনিটের সাংগঠনিক কমিটি গঠন থেকে শুরু করে নিয়মিত সব সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন তারা। তবে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে তাদের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।
রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য সংগঠনকে সব ধরনের নেতিবাচক কর্মকা- থেকে মুক্ত করে ইতিবাচক ধারায় ফেরাবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ছাত্রলীগের পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে এবং শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সব ধরনের চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত বলেও জানান এই দুই নেতা।
আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী কাজ করবে ছাত্রলীগ। তিনি আমাদের দায়িত্ব দিয়েছেন। দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে আমরা কাজ করে যাবো। কারো বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি বা টেন্ডারবাজির অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেলে এবং কেউ ছাত্রলীগের সুনাম নষ্ট করলে সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
লেখক ভট্টাচার্য বলেন, আমাদের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, আগামী ১০ মাসের মধ্যে সবগুলো কমিটি তৈরি করে একটি সুন্দর সম্মেলন উপহার দেয়া। ছাত্রলীগকে নিয়ে যেন সাংবাদিকরা কোনো নেতিবাচক খবর প্রচার করতে না পারেন, আমরা সেই পর্যায়ে সংগঠনটিকে নিয়ে যাবো। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]