• প্রচ্ছদ » » ডাকসুতে রাব্বানীর জিএস পদ কিংবা শোভনের সিনেট সদস্যের পদ থাকা না থাকা স্বার্থসংশ্লিষ্ট নয়


ডাকসুতে রাব্বানীর জিএস পদ কিংবা শোভনের সিনেট সদস্যের পদ থাকা না থাকা স্বার্থসংশ্লিষ্ট নয়

আমাদের নতুন সময় : 17/09/2019

সুলতান মির্জা

শোভন আর রাব্বানীর অপসারণের বিষয়টা আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ বিষয়। শোভন রাব্বানীর বিরুদ্ধে যতো অভিযোগ আছে সেটাও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ রিলেটেড। এখানে একটা দল বা সংগঠনের লাভ-ক্ষতি জড়িত ছিলো। কোনো অবস্থায় ডাকসুতে রাব্বানীর জিএস পদ কিংবা শোভনের সিনেট সদস্যের পদ থাকা না থাকা স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নয়। যেহেতু আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগ আর ডাকসু আলাদা আলাদা সংগঠন বা প্রতিষ্ঠান সেহেতু চাঁদাবাজি অনিয়ম বা অন্য ইস্যুতে শোভন রাব্বানীর নৈতিক চরিত্র স্খলনে ডাকসু থেকে রাব্বানীর জিএস পদ কিংবা সিনেট থেকে শোভনের সদস্য পদ চলে যেতেই হবে কিংবা তাদের অপসারণ করতে হবে এমন কিছু বাধ্যবাধকতা বহন করে না।
এখন রাব্বানী শোভনসহ ছাত্রলীগের ৮ জনকে ডাকসু থেকে অপসারণ ইস্যুতে সরব নূরা ও ছাত্র ফেডারেশনের চিতকার চেচামেচি ভিসির কাছে ধরনা দেয়া ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চার ন্যায় মনে হচ্ছে। এর বাইরে আর কিছু না। হ্যাঁ, তবে কথা থাকে যে জিএস রাব্বানী কিংবা সিনেটের সদস্য শোভন ডাকসুতে থাকা অবস্থায় যদি কোনো অনিয়ম চাঁদাবাজি করে থাকে উপযুক্ত তথ্য প্রমাণ যদি কারো কাছে থাকে তাহলে সেসব তথ্য প্রমাণ প্রকাশ্যে বের করে রাব্বানী শোভনসহ ৮ জনের অপসারণ চাওয়ার অধিকার ভিপি নূরা বা ছাত্র ফেডারেশনের মতো ধ্বজভঙ্গদের আছে বলে বিশ্বাস করি। এর আগে নয়… এখন আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ সমস্যার বিষয় উত্থাপন করে শোভন-রাব্বানীসহ ৮ জন কে অপসারণের দাবি কেউ তোলে তাহলে সেটা ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চার মতো কাজ হবে। আর কিছু নায়। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]