• প্রচ্ছদ » » শামসুর রাহমানের মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে দেশের প্রধান কবি ব্যাপারটার মৃত্যু ঘটে


শামসুর রাহমানের মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে দেশের প্রধান কবি ব্যাপারটার মৃত্যু ঘটে

আমাদের নতুন সময় : 17/09/2019

শোয়েব সর্বনাম : শামসুর রাহমানের মৃত্যুর সঙ্গে সঙ্গে দেশের প্রধান কবি ব্যাপারটার মৃত্যু ঘটে। এখন আর এই দেশের কবিরা কেউ নিজেরে প্রধান কবি মনে করেন না। হুমায়ূন আজাদ সেই আমলে একটা সাংবাদিক সম্মেলন করছিলেন। সেইখানে তিনি বলেন, শামসুর রাহমান ছাড়াও দেশে অনেক প্রধান কবি আছেন। তাদের মধ্যে একজন তিনি নিজে। একইসঙ্গে দুই দুইজন প্রধান কবি থাকার পরও পরবর্তিতে দেশে আর একজনও প্রধান কবির জন্ম না হওয়ার ঘটনাটা দুঃখজনক। পরে অবশ্য কেউ কেউ দাবি করছিলেন, এর পরে দেশের প্রধান কবি আল মাহমুদ। আমি আল মাহমুদের কবিতাগুলো নিয়মিত খুব আগ্রহ নিয়া পড়ি। তো দেশের প্রধান কবি জ্ঞান কইরা তার বেশ কয়েকটা ইন্টারভিউ নিয়া ফেললাম। ইন্টারভিউটা নিয়া অনলাইনে খুব হল্লা হইল। তার কিছুদিন পরই একটা জাতীয় দৈনিকে আল মাহমুদের কবিতা ছাপা হয়। তখন মাহমুদুর রহমানকে জেলে ঢোকানো হইছে, সারাদেশে সেইটা নিয়া আলোচনা। কবি আল মাহমুদও জেলবন্দি সাংবাদিক মাহমুদুর রহমানরে নিয়া একখানা কবিতা রচনা করছেন। কবিটাতার সারমর্ম করলে দাঁড়ায়, তুমিও মাহমুদ, আমিও মাহমুদ। তুমিও যেমন জেলখাটা লোক, আমিও তেমনই। ফলে চিন্তার কিছু নাই। এই রকম কবিতাগুলোর মধ্য দিয়া তিনি নিজেরে যখন একটা রাজনৈতিক দলের লোক হিসেবে নিজেরে দাবি করতে থাকলেন, তখন আর তিনি জাতীয় বা প্রধান থাকতে পারলেন না। তখন আবার কেউ কেউ বলতে লাগলো, সৈয়দ হকই হবেন এই সময়ের প্রধান কবি। তখন সৈয়দ হক ঢাকার মেয়র নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর প্রচারণায় প্রকাশ্যে মাঠে নামলেন। বাঁইচা থাকলে এতোদিনে তিনি টেকনোক্রেট কোটায় মন্ত্রীও হইতে পারতেন। প্রধান কবি কেমনে কী?
মন্ত্রী হওয়ার বাসনা ছিলো আহমদ ছফার মনের গহীনে। ব্রাত্য রাইসুর কাছে ইন্টারভিউতে তিনি বলেন, আমি তো মন্ত্রী, আমি তো মন্ত্রী। কেউ কেউ বলেন, গার্লফ্রেন্ডকে বিকাশ করার জন্য খুলনা নিউমার্কেটে গিয়া স্ক্যান্ডাল রচনা না করলে পরের কোনো এক বিএনপির আমলে ফরহাদ মজহারের রাষ্ট্রপতি হওয়ার সম্ভাবনাও ছিলো। তো যেইটা বলতেছিলাম আরকি, শামসুর রাহমানের পর সকলেই কবিতা লেইখা রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রী ইত্যাদি হইতে চাইছেন। কেউ আর কবি হইতে চান নাই। প্রধান কবি তো দূর অস্ত। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]