তিন দিনেই সৌদি থেকে ফিরেছেন ৩৮৯ বাংলাদেশি, নয় মাসে ১০ হাজার

আমাদের নতুন সময় : 19/09/2019

তাপসী রাবেয়া : কাজের বৈধ অনুমোদন থাকা সত্ত্বেও সেদেশের পুলিশ ধরে ধরে দেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে বাংলাদেশি শ্রমিকদের। ফেরত আসা শ্রমিকদের অভিযোগ বাংলাদেশের দূতাবাস তাদের কোনো সহযোগিতাই করেনি। আট মাস আগে সৌদি আরবে গিয়েছিলেন সিলেটের আবু বক্কর। কিন্তু গত পরশু রাতে শূন্য হাতে দেশে ফিরতে হয় তাকে। কাজের বৈধ অনুমোদন (আকামা) থাকার পরও সে দেশের পুলিশ ধরে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে বলে জানান তিনি। গত মঙ্গলবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে সৌদি এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে বক্করের মতো ফেরেন ১৬০ বাংলাদেশি। আর গত তিন দিনে ফিরলেন ৩৮৯ জন। এছাড়া গত ৯ মাসে ১০ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশিকে সৌদি থেকে ফিরতে হয়েছে।
আগের দিনের মতো মঙ্গলবারও দেশে ফেরা কর্মীদেরকে বিমানবন্দরের ওয়েজ অর্নাস কল্যাণ ডেস্কের সহযোগিতায় ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম থেকে বিমানবন্দরে খাবারসহ নিরাপদে বাড়ি পৌঁছানোর জন্য জরুরি সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ফেরত আসা চাঁদপুরের জামাল নামের এক শ্রমিক বলেন, সাড়ে চার হাজার রিয়াল দিয়ে আকামা করার দু’মাসের মাথায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় পুলিশ ধরে দেশে পাঠিয়ে দিয়েছে।
দেশে ফেরা ১৬০ বাংলাদেশির সবার এমনই অভিযোগ করেছেন। তারা বলছেন, বৈধ আকামা থাকা সত্ত্বেও তাদের জোরপূর্বক ধরে জেলখানাতে কিছুদিন রেখে দেশে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।
কিছু কর্মী অভিযোগ করেছেন মালিক আকামা নতুন করে নবায়ন করেনি। ফলে আকামা বাতিল করে তাদের দেশে পাঠানো হচ্ছে। এক্ষেত্রে সৌদি বাংলাদেশ দূতাবাস তাদের কোনো সহযোগিতা করেনি বলে অভিয়োগ তাদের। ফেরত আসা কর্মীরা জানান, সরকারের পক্ষ থেকে এখনই ব্যবস্থা না নিলে বড় সমস্যা তৈরি হবে। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]