দুর্গা পূজার নিরাপত্তায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে তিন লাখ সদস্য, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আমাদের নতুন সময় : 19/09/2019


আনিস তপন : এবারের দুর্গা পূজায় সারাদেশে ৩১ হাজার ১০০টি পূজা ম-পের নিরাপত্তায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাড়ে তিন লাখ সদস্য মোতায়েন থাকবে। বুধবার সচিবালয়ে আসন্ন শারদীয় দুর্গা পূজা উপলক্ষে সার্বিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত এক সভা শেষে এ তথ্য জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। এ সময় তিনি বলেন, ধর্মীয় নেতারা বলেছেন, এ বছর পূজা ম-পের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। এতে গত বছরের তুলনায় কমপক্ষে এক হাজার ম-প বাড়তে পারে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শুধু ঢাকা মহানগরীতেই গত বছরের তুলনায় ২৩৭টি পূজা ম-প বাড়ছে। সব পূজা ম-পের আশপাশে পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যদের পাশাপাশি হ্যন্ডমেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়ে স্থাপন করা হবে। তাছাড়া সেব পূজা ম-পে বিদ্যুত সরবরাহ থাকবে সেখানে সিসি ক্যামেরা স্থাপনের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
প্রতিটি পূজা ম-পে স্থানীয়দের সমন্বয়ে একটি আইন-শৃঙ্খলা কমিটি থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে তারা সমন্বয় করে কাজ করবে।
সভায় সাম্প্রতিক সময়ে পূজাম-প ও প্রতিমা ভাঙচুরের বিষয়ে চুলচেড়া বিশ্লেষণ করা হয়েছে বলে জানান কামাল। তিনি বলেন, সব ঘটনা উদ্দেশ্য প্রণোদিত নয়। কিছু ঘটনা নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণেও ঘটেছে। তবে উদ্দেশ্যমূলকভাবে কেউ পূজাম-প ও প্রতিমা ভাঙচুর করলে সরকার তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অবৈধ পথে রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট করতে শুধু পুলিশই জড়িত নয়, অনেকেই এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত। তবে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট প্রক্রিয়ায় অনেক সংস্থা জড়িত। আপনারা শুধু পুলিশের দিকে ইঙ্গিত করবেন সেটা হবে না। একাজে স্থানীয় চেয়ারম্যান, জন্মনিবন্ধন যিনি করেন তিনি, ওয়ার্ড কমিশনার বা চেয়ারম্যান এবং এনআইডি কার্ড সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বা কর্মচারীর ভূমিকা রয়েছে। এর পরই পুলিশ তথ্য যাচাই-বাছাই করে। সম্পাদনা : রমাপ্রসাদ বাবু




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]