• প্রচ্ছদ » » ফুরিয়ে যাওয়া শরৎ, ফুরিয়ে যাওয়া যৌবন


ফুরিয়ে যাওয়া শরৎ, ফুরিয়ে যাওয়া যৌবন

আমাদের নতুন সময় : 20/09/2019

বীথি সপ্তর্ষি

শরৎ আসলেই আমার আলতা মাইখা দুই বাধার স্যান্ডেল পায়ে দিয়া, রূপালী রঙের এক জোড়া নুপুর পায়ে বাইন্ধা কোথাও যাইতে ইচ্ছা করে। কোথায় যাইতে ইচ্ছা করে তা জানি না। হয়তো সাহেব বাজার, হয়তো সোনাদীঘির মোড় বা মণিচত্বর, আরডিএ মার্কেটের গেট কিংবা শিমলা পার্কের বেঞ্চি। ঠিক বলতে পারবো না। অথচ আমি যে আলতা মাইখা ওইসব জায়গায় খুব যাইতাম তাও না, কখনোই যাই নাই। আমার প্রথম প্রেম, তার প্রাক্কাল, বিচ্ছেদ পরবর্তী বিভিন্ন সময় সেই শহরে হিমঘরে লাশের মতো এখনো স্থির হইয়া আছে।
আমার প্রথম প্রেম, প্রেম বোঝার আগের সেই প্রেম। শরৎ আসলেই আমি নয় বছর আগের দুপুরের শিমলা পার্কের পিচ দেওয়া রাস্তায় নীল সাইকেলে চাইপা ক্যাপ পরা তাকে এই জ্যাম শহরের আনাচে কানাচে দেখতে পাই। তখন খুব নিরস, চুপচাপ, শান্ত ছিলাম। কোনোদিন চোখে কাজল, কপালে টিপ, নখে নেইলপলিশের তুলি, পায়ে আলতা ছোঁয়ানো হয়নি। পৃথিবীতে এতো রঙের অস্তিত্ব আছে সেটা কোনোদিন টেরই পাই নাই। শরতের এই গরমে ঘামতে ঘামতে হাতে-পায়ে আলতা মাইখা দুপুরের চড়া রোদে রিকশার জ্যামে বইসা কাটাইতে ইচ্ছা করে ইদানীং। রোদের কমলারঙের তুলিতে হাত-পায়ের টকটকে লাল রং শান দিয়ে সব পুড়াইয়া দিতে ইচ্ছা করে। জ্যামে বইসা থাকতে থাকতে বিকাল হইয়া গেলে শুকনো আলতার মরা চোখের দিকে না তাকাইয়া আকাশের নীল চোখের পাতায় দুধের মতো ধবধবে সাদা মেঘের দিকে তাকাইয়া গান গাইতে ইচ্ছা করে। যে প্রেম প্রায় ভুইলাই গেছি, সেই প্রেমিকের জামার আস্তিন গুটাইয়া দুই আঙ্গুল দিয়া চাইপা ধইরা তারে কাছে রাখতে ইচ্ছা করে। তার মৃত রুহের মতো স্থির বইসা তার জায়গায় ভিন্ন প্রেমিকের অনর্গল মিথ্যা প্রেমের ধোঁয়ায় ভাইসা যাইতে ইচ্ছা করে। অথচ এইসব মিথ্যা প্রেম, ভাইসা যাওয়া, ডুইবা মরা, প্রেমশূন্য ট্রাফিক সিগন্যাল বাঁচাইয়া রাইখা আমি কেবল অফিস-বাড়ির চক্রে আটকায়া রাখি।
শুধু হঠাৎ শরৎ এলে একদিন আলতা কিনতে পুরনো শহরে ঘিঞ্জি গলির ভেতর হারাইয়া যাই, বেশি কইরা বরফ দেওয়া লেবুর শরবত খাইয়া মন শীতল কইরা দিনের আধবোজা চোখের উপর দিয়া টিনের বাসে চাইপা বাড়ির পথে নাইমা আসি। এই শরৎও একদিন ফুরাইয়া যাইবে, প্রথম প্রেমের মতো। আমার আলতার রং, চোখের কাজল, সাদা মেঘ, রূপালী নুপূর সব ফুরাইয়া যাইবে। সব ফুরাইয়া যাইবে। আমি তখনও রাতের রাস্তা ডিঙাইয়া বাড়ি ফিরিবো, কিন্তু কোথাও রঙের কঙ্কাল ছিন্নভিন্ন হইয়া পইড়া থাকবে না। ফুরাইয়া যাওয়া শরৎ আর ফুরাইয়া যাওয়া যৌবনের মতো একদিন সব রংও ফুরাইয়া যাইবে। ফেসবুক থেকে




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]