চাঁদের বুকে আছড়ে পড়ে বিক্রম, হদিস পেলো না নাসা

আমাদের নতুন সময় : 28/09/2019


রাশিদ রিয়াজ : মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা এক বিবৃতিতে ওই তথ্য জানিয়েছে। লুনার রেকনেসাঁ অরবাইটার ক্যামেরার মাধ্যমে একটি ছবিও পাঠিয়েছে নাসা। তবে বিক্রম এখন ঠিক কোথায় রয়েছে, তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি বলে জানিয়েছে মার্কিন মহাকাস গবেষণা সংস্থা।
বিবৃতিতে নাসা আরও জানিয়েছে, ‘৬ সেপ্টেম্বর ইস্টার্ন ডে-লাইট টাইমে বিকেল ৪.২৪-এ চাঁদের মাটি ছোঁয়ার কথা ছিল ল্যান্ডারের বিক্রমের। এটা চাঁদের মাটিতে সফট ল্যান্ডিঙের প্রথম প্রচেষ্টা ছিল ভারতের। এরআরও বিক্রমের অবতরণস্থলের উপর দিয়ে যায় ১৭ সেপ্টেম্বর এবং হাই-রেজোলিউশন কিছু ছবি তোলে। এখনও পর্যন্ত বিক্রমের অবস্থান জানা বা তার ছবি তোলা সম্ভব হয়নি এলআরও টিমের পক্ষে। অবতরণস্থলের ছবি যখন তোলা হয়েছে, তখন গোধুলী ছিল। সে জন্য বড় ছায়া পড়তে দেখা গিয়েছে। বিক্রম ল্যান্ডার ছায়ায় লুকিয়ে থাকতে পারে।
১৪ অক্টোবরে এলআরও যখন আবার অবতরণস্থলের উপর দিয়ে যাবে, তখন আলো ভালো পাওয়া যাবে বলে আশা করছে নাসা। তখন আবার বিক্রমের অবস্থান জানার চেষ্টা করা হবে। ইসরোর তরফে জানানো হয়েছে বিক্রম ল্যান্ডার ও তার প্রজ্ঞান রোভারের আয়ুষ্কার চাঁদের পৃষ্ঠে একদিন, পৃথিবীতে যে সময় ১৪ দিনের সমান।
যেখানে বিক্রম নামার চেষ্টা করেছিল সেই ল্যান্ডিং সাইটের ছবিগুলি টুইট করেছে নাসা। চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডার, বিক্রম, সিম্পেলিয়াস এন এবং মঞ্জিনাস সি ক্রাটারের মধ্যে চন্দ্রপৃষ্ঠের উঁচুজমির মধ্যেই তুলনামূলকভাবে মসৃণ সমভূমির একটি ছোট জায়গায় গত ৭ সেপ্টেম্বর অবতরণের চেষ্টা করেছিল। বিক্রমের এটি অত্যন্ত কঠিন অবতরণ ছিল। ছবিগুলি সন্ধ্যার সময় তোলা হয়েছিল, যদিও এই ছবি থেকে ল্যান্ডারটি শনাক্ত করা যায়নি। আলো যখন অনুকূল হবে তখন অক্টোবরে মুন অরবিটার আবার “ল্যান্ডারটিকে সনাক্ত এবং চিত্র” দেয়ার চেষ্টা করবে।
বৃহস্পতিবার ইসরো প্রধান কে সিভান বলেন, ল্যান্ডারের সঙ্গে আসলে কী ভুল হয়েছে তা বিশ্লেষণ করা হচ্ছে। আমরা ল্যান্ডারের কাছ থেকে কোনো সংকেত পাইনি। ১,০০০ কোটি টাকার চন্দ্রযান-২ মিশন সফল করে ইতিহাসের পাতায় নাম তোলার আশা ছিল ভারতের। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]