মিসরের উত্তাল বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর টিয়ার সেল নিক্ষেপ

আমাদের নতুন সময় : 29/09/2019


ইমরুল শাহেদ : মিসরের রাজধানী কায়রোতে একটা বড় ধরনের বিক্ষোভ পুলিশ ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। বিক্ষোভ মিছিলটি প্রথমে ছোট আকারে শুরু হয়। পরে সেটা বড় আকার ধারণ করে। মিসরের বিভিন্ন শহরে প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসির পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ চলতে থাকলেও রাজধানীতে সিসিপন্থীরাও মিছিল বের করে। রয়টার্স।
গত সপ্তাহের শুরুর দিকে কায়রোতে এই বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়। সিসি ও ক্ষমতাসীন সেনাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অপচয়ের অভিযোগ আনা হচ্ছে। তবে সিসি এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শী ও নিরাপত্তা সূত্রগুলো জানিয়েছে, শুক্রবার ওয়ারাক্কা দ্বীপের পুলিশ প্রায় এক হাজার লোকের একটি মিছিল টিয়ার সেল ব্যবহার করে ছত্রভঙ্গ করে দিয়েছে। মিছিলকারীরা এ সময় সিসির পদত্যাগের দাবিতে শ্লোগান দিতে থাকে। এছাড়া দক্ষিণাঞ্চলীয় মিসরের কুসে বিক্ষোভকারীরা সমবেত হতে চাইলে পুলিশ তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ তথ্য জানিয়েছে নিরাপত্তা সূত্রগুলো।
কায়রোর কেন্দ্রস্থল তাহরীর স্কয়ার পুরো শহর থেকে বিচ্ছিন্ন রাখা হয়েছে। ২০১১ সালে এই তাহরীর স্কয়ার থেকে শুরু হওয়া আন্দোলনে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনী মোবারক। মিসরের প্রধান শহরগুলোতে পুলিশের নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। সাদা পোশাকের পুলিশ সন্দেহভাজনদের দেহ তল্লাশি করছে। মোবাইল ফোন মেমোরিতে রাজনৈতিক উপাদান খুঁজে বেড়াচ্ছে।
সিসি শুক্রবার সকালে নিউইয়র্ক থেকে মিসর ফিরেছেন। বিমানবন্দরে উর্ধ্বতন মন্ত্রীরা তাকে স্বাগত জানান এবং উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে বক্তৃতা করেন। বক্তৃতায় সিসি তার বিরুদ্ধে আনা সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন। সাবেক ঠিকাদার মোহাম্মদ আলী অনলাইন পোস্টের মাধ্যমে বিভিন্ন দুর্নীতির তথ্যাদি মিসরে ছড়িয়ে দিয়েছেন। সেই সুবাদেই বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। মোহাম্মদ আলী যেসব ভিডিও পোস্ট করেছেন সেগুলোই জনগণকে সিসির বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ করে তুলেছে। তিনি বলেন, ‘বরাবরের মতো এবারও একই ধারা অনুসরণ করা হয়েছে। এসব অভিযোগ মিথ্যাচার ও সুনামহানিকর। কিছু গণমাধ্যম এমন একটি চিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করছে, যা সত্য নয়।’
গত সপ্তাহে বিক্ষোভের সময় প্রায় দুই হাজার লোক গ্রেপ্তার করা হয়। মিসরের সরকারি আইনজীবী বলেছেন, বিক্ষোভে অংশগ্রহণকারী প্রায় এক হাজার লোককে তাদের আইনজীবীর উপস্থিতিতেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]