এই সপ্তাহের মধ্যে ব্রেক্সিট সময়সীমা না বাড়ালে বরখাস্ত হবেন বরিস

আমাদের নতুন সময় : 01/10/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ব্রেক্সিট বিরোধী এমপিরা সোমবার এক বৈঠকে বসেন। জানা গেছে এই মাসের শুরতে পার্লামেন্টে পাশ হওয়া নতুন ব্রেক্সিট আইনের বরাত দিয়ে তারা বরিসকে এই বিষয়ে চাপ দেবেন। তারা বলছেন, চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের কোনো নোংরা পরিকল্পনা বাস্তবায়নের চেষ্টা করলে বরিস জনসনকে সরে যেতেই হবে। মেট্রো
বরিসকে চাপে ফেলার এই পরিকল্পনা করেছেন লিবারেল ডেমোক্রেট নেতা জো সুইনসন। সব দল মতের এমপিদের একটি উদ্দেশ্যে একট্টা করা যুক্তরাজ্যের রাজনীতিতে নতুন ধরণের মেরুকরণ তৈরী করতে পারে। ব্রিটিশ পার্লামেন্টে বিদ্রোহী এমপিরা যে তথাকথিত বেন অ্যক্ট পাশ করেছেন সে অনুযায়ী বরিস এমনিই ব্রেক্সিট বাস্তবায়নকারী ৫০ নম্বর অনুচ্ছেদ আরো বিলম্বিত করতে বাদ্য। তবে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এই আইনকে বাইপাস করতে বিভিন্ন বিকল্প খুজছে ডাউনিং স্ট্রিট। তবে আইন অনুযায়ী ১৯ অক্টোবর একটি ব্রেক্সিট চুক্তি করতেই হবে বরিস জনসনকে। তিনি যদি সেটিতে ব্যর্থ হন তবে ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছে সময় বাড়ানোর আবেদন করতে হবে। তবে একটি বিরোধীপক্ষ তাকে এতোটা সয় দিতেও নারাজ। তারা বলছেন আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই বরিস জনসনকে একটি ব্রেক্সিট চুক্তিতে আসতে হবে। তিনি যদি না পারেন, তবে তার পদত্যাগ করার কোনো বিকল্প রাখতে চান না তারা। লিবারেল ডেমোক্রেটদের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে, সোয়াইনসন নিজের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে লেবার, এসএনপি, প্লেইড কেয়ামরু আর গ্রীন পার্টিল এমপিদের প্রায় রাজিই করিয়ে ফেলেছেন। এসএনপি নেতা ইয়ান ব্ল্যাকফোর্ড এই বিষয়ে রাজি হয়েছেন বলেওে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। তবে অনাস্থা আনা হবে নাকি অন্য কোনো পদ্ধতিতে বরিসকে সরানো হবে তা নিশ্চিতভাবে জানাননি কেউ। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]