সম্রাটের বিষয়ে কাদের বললেন, ওয়েট অ্যান্ড সি

আমাদের নতুন সময় : 02/10/2019

আনিস তপন : যুবলীগের পলাতক নেতা ইসমাইল চৌধুরী স¤্রাটকে সরকার ছাড় দিচ্ছে, এটা সত্য নয়। অভিযান পরিচালনাকালে নানা বিষয় এসেছে, সেসব তদন্ত হচ্ছে। তাই কারো বিষয়ে তদন্তে কিছু পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিবে সরকার। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এসময় তিনি বলেন, শুদ্ধি অভিযান কোনো ব্যাক্তি বা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে নয়। দুর্নীতি, অনিয়মের বিরুদ্ধে। তাই ওয়েট অ্যান্ড সি। দেখেন কি হয়।
সেতুমন্ত্রী বলেন, দুর্নীতি অনিয়মের সঙ্গে জড়িত আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীসহ সব নেতারাই নজরদারিতে আছেন। তিনি বলেন, প্রতিদিনই অভিযান চলছে। কেউ না কেউ গ্রেফতার হচ্ছে। অভিযান চলছে এবং চলবে।
এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আটকের তালিকায় কতজন, এমন কোন তালিকা নেই। তবে সুনামগঞ্জ থেকে সুন্দরবন, টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া সর্বত্র অভিযান চলবে। তিনি বলেন, যারাই দুর্নীতি, অনিয়ম ও ক্যাসিনোর সঙ্গে জড়িত থাকবে তাদের বিরুদ্ধেই অভিযান চলবে। কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ওবায়দুল কাদের বলেন, অপরাধ ও দুর্নীতির দায়ে যাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে তারা চুনোপুঁটি হলেও অপরাধ রাঘববোয়ালদের মতো বড়। শুধু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব নয়, অন্যান্য সেক্টরেও যেখানেই অনিয়মের অভিযোগ আসছে সেগুলো তদন্ত করা হবে।
প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরেছেন, চলমান অভিযান নিয়ে তিনি কোনও দিক নির্দেশনা দিয়েছেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে কাদের বলেন, তিনি কী করবেন তা নিউইয়র্কের সংবাদ সম্মেলনেই ইঙ্গিত দিয়েছেন। অভিযান জোরদার হবে তা স্পষ্ট করেছেন। তিনি খোঁজখরব নিচ্ছেন। কার কার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন তা অচিরেই পরিষ্কার হবে।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, অতীতে যারা রাষ্ট্র পরিচালনা করেছেন সেই সমস্ত লোকদের মধ্যে যারা অবৈধ সম্পদের মালিক হয়েছেন তাও খতিয়ে দেখা হবে। আওয়ামী লীগ ঘর থেকে এই অভিযান শুরু করলো।
পরিবহন সেক্টরে চাঁদাবাজি প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, পরিবহন সেক্টরেও চাঁদাবাজি হয়। এসব চাঁদাবাজির ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি জেনারেলাইজড করা হয়েছে। অপরাধ করলে শাস্তি পেতেই হবে। বিএনপির আমলে এত দুর্নীতি, অনিয়ম হয়েছে তারপরও নিজ দলের কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারেনি, কিন্তু শেখ হাসিনা সরকার তা পেরেছেন। বাজারে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার ব্যাপারে কাদের বলেন, বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা অজুহাত পেলেই জিনিসপত্রের দাম লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়িয়ে দেয়। পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। তবে সীমা ছাড়িয়েছে কিনা তা বাণিজ্য মন্ত্রণালয় জানে। সম্পাদনা : কাজী নুসরাত




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]