দুর্নীতি আর অব্যবস্থাপনার বিরুদ্ধে ইরাকজুড়ে চলছে ব্যাপক বিক্ষোভ , নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে সংঘর্ষে নিহত ৯৩, আহত ৪ সহস্রাধিক

আমাদের নতুন সময় : 06/10/2019


নূর মাজিদ : অর্থনীতি নিয়ে সরকারের ব্যাপক অব্যস্থাপনা, দুর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব এখন ইরাকি তরুণদের নিত্যসঙ্গী। ইসলামিক স্টেট জঙ্গিগোষ্ঠীর উত্থানে মার্কিন আগ্রাসন পরবর্তী যুদ্ধবিদ্ধস্ত ইরাকের এসব ইস্যু এতদিন বিশ্ব গণমাধ্যম আড়াল করেই রেখেছিলো। কিন্তু, গত কয়েকদিন ধরে দেশটির তারুণ্য যেভাবে প্রতিবাদে রাজপথে নেমেছে, সেই প্রেক্ষিতে এসব অবস্থাপনা আর গোপন রাখা সম্ভব হবেনা। সূত্র : আল জাজিরা।
গতকাল শনিবার ছিলো চলমান বিক্ষোভের এখন পর্যন্ত সবচাইতে রক্তাক্ত দিন। এদিন পুলিশ ও সেনাবাহিনীর গুলিতে কমপক্ষে ৯৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এটাই ছিলো নিহতের সর্বশেষ পরিসংখ্যান। আহত হয়েছেন কমপক্ষে চার হাজার। স্থানীয় হাসপাতাল এবং বিক্ষোভকারিদের বরাত দিয়ে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা এই সংখ্যা জানিয়েছে। ইরাকি হাই কমিশন ফর হিউম্যান রাইটস বলছে, হতাহতের পাশপাশি গণ গ্রেফতার অভিযানে হাজার হাজার মানুষকে আটক করেছে দেশটির সরকারি বাহিনী।
বিক্ষোভ সংগঠন বন্ধ করতে দেশজুড়ে ইন্টারনেট সেবা বন্ধ রাখার পরেও, ইরাকের সকল প্রধান প্রধান শহরে বিক্ষোভ হচ্ছে। মাত্র এক বছর হলো ক্ষমতায় আসা প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল মাহদির সরকারের বিরুদ্ধে একে এখন বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে চলমান আন্দোলন। রাজধানী বাগদাদে কারফিউ জারি করেও যা মোকাবেলায় ব্যর্থ হয়েছেন মাহদি। বরং প্রতিনিয়তই বিক্ষোভে অংশ নেয়া মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। তাদের সকলের দাবি,ব্যাপক দুর্নীতির অবসান, সুশাসন এবং দশকব্যাপী যুদ্ধবিগ্রহে ভঙ্গুর জনসেবা ব্যবস্থার উন্নয়ন। একইসঙ্গে, কর্মসংস্থানের দাবিও ক্ষুদ্ধ মানুষকে জনপথে নামিয়ে এনেছে। তারা শুধু বর্তমান সরকার নয় বরং ইরাকের পুরো রাজনৈতিক ব্যবস্থার পরিবর্তন চাইছেন। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]