ফাস্ট ফুড কোম্পানি স্পন্সরশিপ নেয়ায় ১শ বলের টুর্নামেন্ট নিয়ে সমালোচনা

আমাদের নতুন সময় : 06/10/2019

শিউলী আক্তার : নতুন ফরম্যাটের এ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াবে এখনো আট মাস পর। এর আগেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। ইতিমধ্যে টুর্নামেন্টের ফরম্যাট ও প্লেয়ার্স ড্রাফট চূড়ান্ত করেছে আয়োজক ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু স্পনসর পার্টনার হিসেবে একটি ফাস্টফুড কোম্পানির সাথে যুক্ত হয়েই তারা সমালোচনার মুখে পড়েছে। নতুন ফরম্যাটের এই টুর্নামেন্টে স্পন্সর তালিকায় আছে ‘কেপি স্ন্যাকস’ নামে একটি প্রতিষ্ঠান। যাদের মূল পণ্য জাঙ্ক ফুড- যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আর এতেই আয়োজকদের উপর চটেছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। খেলাধুলার মত গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্টে জাঙ্কফুড কোম্পানিকে যুক্ত করে মানুষকে স্বাস্থ্য সচেতনতা বিমুখ করা হচ্ছে বলে তাদের মত। বিশেষ করে শিশুদের নিয়ে বেশ চিন্তিত বিশ্লেষকরা। ডেইলি সান।
স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ক্যারোলিন সেনরি এমন পদক্ষেপ শিশুদের নেতিবাচক করবে উল্লেখ করে বলেন, ‘জনপ্রিয় খেলাধুলার আসরে জাঙ্ক ফুড প্রতিষ্ঠান স্পন্সর হওয়া মানে প্রতিষ্ঠানটি শিশুদের মস্তিষ্কে তাদের অস্বাস্থ্যকর খাবারগুলোর ধারণা দিয়ে দেয়ার প্রচেষ্টা।’
ন্যাশনাল অবেসিটি ফোরামের চেয়ারম্যান ট্যাম ফ্রাই মনে করেন যুক্তরাজ্যের উচিত আমাস্টারডাম শহরের নীতি অনুসরণ করা যেখানে কেবল স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করে এমন প্রতিষ্ঠানই স্পন্সর হিসেবে যুক্ত হয়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইসিবি তাদের আর্থিক তহবিল সংগ্রহের জন্য বড় বড় সমাসসেবা সংস্থাগুলোর দারস্থ হতে পারতো।’
সমালোচনার পর নিজেদের পন্যকে যতটুকু সম্ভব স্বাস্থ্যকর করেই বাজারজাত করার আশ্বাস দিয়েছে ‘কেপি স্ন্যাকস’। এদিকে ইংলিশ বোর্ডও স্বীকার করেছে এ ব্যাপারে তাদের আরও সচেতন হওয়া উচিত ছিলো। এছাড়া স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধিতে ইংলিশ বোর্ড নিজেদের নিয়ম নীতি মেনে চলার ব্যাপারেও বেশ শক্ত অবস্থান নিবে বলেও জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম। সম্পাদনা : আক্তারুজ্জামান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান
বার্তা ও বাণিজ্য বিভাগ ঃ ১৯/৩ বীর উত্তম কাজী নুরুজ্জামান সড়ক , পশ্চিম পান্থপথ, ঢাকা থেকে প্রকাশিত
ছাপাখানা ঃ কাগজ প্রেস ২২/এ কুনিপাড়া তেজগাঁও শিল্প এলাকা ,ঢাকা -১২০৮
ই- মেইল : [email protected]