আফরোজা হোসেন কী কানাডায় প্রথম বাংলাদেশি এমপি হচ্ছেন?

আমাদের নতুন সময় : 08/10/2019

মোহাম্মদ আলী বোখারী টরন্টো থেকে: ক্ষমতাসীন দল বলে কথা! তাই কানাডায় ক্ষমতাসীন লিবারেল সরকারের প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর দল থেকে ২১ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় জাতীয় নির্বাচনে প্রথমবারের মতো একমাত্র বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আফরোজা হোসেনকে অশোয়া আসনে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। সেটি টরন্টো থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে। অবশ্য শেষ মুহুর্তে অর্থাৎ গত ১৪ সেপ্টেম্বর লিবারেল পার্টির ওয়েবসাইটে তার পরিচিতিটি স্থান পায়। যদিও দলের এই মনোনয়ন প্রক্রিয়াটি দেশব্যাপী ১৫ মাস আগে, ২০১৮ সালের জুনের শেষ সপ্তাহে শুরু হয়।

এতে সাক্ষাতকারের জন্য ইমেইলের প্রত্যুত্তর না পেয়ে আফরোজা হোসেনের পরিচিতিতে দৃশ্যমান যে, তিনি ও তার স্বামী ৩০ বছর আগে কানাডায় পদাপর্ণ করেন এবং নানা প্রতিকূলতার মুখোমুখি হন। চল্লিশোর্ধ্ব জীবনে তিনি পড়াশোনায় মনোনিবেশ করেন এবং দুরহাম কলেজ থেকে ব্যবসা প্রশাসনে ডিপ্লোমা অর্জনসহ ২০১৭ সালে ইউনিভার্সিটি অব অন্টারিও ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে সন্মানসহ ব্যাচেলর অব কমার্স সম্পন্ন করেন। এই চ্যালেঞ্জের মাঝে তিনি মধ্যবিত্ত সমাজ তথা অভিবাসী ও উদ্বাস্তুদের সঙ্গে একীভূত। স্থায়ী কোনো চাকুরি না থাকার পাশাপাশি ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক মন্দায় নিজের বাড়ীটি হারান; তবু নিজের মেয়েকে গড়ে তোলা ও ক্যান্সার আক্রান্ত স্বামীর পরিচর্যাসহ নিজের পড়াশোনা অব্যাহত রাখেন। তিনি নবাগত অভিবাসীদের বসতি গড়ায় গর্বিত। এতে আরও বলা হয়েছে, ‘তিনি অশোয়ার যথার্থ কন্ঠস্বর, কারণ তিনি মধ্যবিত্ত সমাজজীবনের টানাপড়েনটি জানেন, যা নবাগত অভিবাসী থেকে পঞ্চম প্রজন্মের কানাডিয়ানদের জীবনে অভিন্ন। ওই পথ পাড়ি দিয়ে নিজেকে কঠোর পরিশ্রমের জন্য তৈরি করেছেন। আজ কানাডা তার জন্য দুয়ার খুলে দিয়েছে ও স্থায়ীত্ব পেয়েছেন। প্রতিদানে তিনি অন্যের কণ্ঠস্বর হতে চান।’

নিশ্চয়ই সেই সাফল্যের প্রত্যাশা কানাডায় বাংলাদেশি কমিউনিটির। কিন্তু তাকে লড়তে হবে প্রতিদ্বন্দ্বী কনজারভেটিভ দলের লাগাতার পাঁচবারের শক্তিমান এমপি কলিন কেরি এবং এনডিপি প্রার্থী শাইলিন পেনিলোর বিরুদ্ধে। কেননা ওই পাঁচবারই এনডিপি প্রার্থীরা সেখানে দ্বিতীয় হয়েছেন। এছাড়াও প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে রয়েছেন- গ্রীণ পার্টির জোভানা রামসডেন, সদ্যগঠিত পিপলস পার্টির এরিক ম্যাকেঞ্জি, কমিউনিস্ট পার্টির জেফ টমলিনসন ও রাইনো পার্টির অ্যাডাম স্মিথ। অনুরূপভাবে প্রাদেশিক অশোয়া আসনে ২০০৩ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত তিনবার প্রোগ্রেসিভ কনজারভেটিভ দলের জেরি ওলেট এবং ২০১৪ থেকে বর্তমানে এনডিপি দলের জেনিফার ফ্রেঞ্চ সেখানে দুইবারের এমপিপি। সহজে অনুমেয়, তিনি দলীয় ও জনসংখ্যাতাত্ত্বিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি। তথাপি আশার কথা, তার মনোনয়ন ঘোষণার আগের দিনে প্রকাশিত ‘আইপলিটিক্স্রের মেইনস্ট্রিট রিসার্চ’ জরিপে অশোয়া আসনে দ্বিতীয় জনপ্রিয়তায় রয়েছে লিবারেল পার্টি। হয়তো সেটাই আফরোজা হোসেনের জন্য জয় বয়ে আনতে পারে।




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]