৩৫ লাখ বছর আগে বিস্ফোরণ ঘটেছিলো মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সির কেন্দ্রে

আমাদের নতুন সময় : 08/10/2019

আসিফুজ্জামান পৃথিল : আমাদের নিজেদের ছায়াপথ সম্পর্কে ধারণাই পাল্টে দিয়েছেন একদল গবেষক। মিল্কিওয়ের ঠিক কেন্দ্রে থাকা এটি সুপরিসর কৃষ্ণগহ্বরের পাশেই ঘটেছিলো এই মহাবিস্ফোরণ। এই স্থানটি আমাদের থেকে দুই লাখ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। আমরা আমাদের ছায়াপথ সম্পকে যা জানতাম তার বিবর্তন এর চেয়ে অনেক বেশি চমকপ্রদ। -বিবিসি অস্ট্রেলিয়ার ইউনিভার্সিটি অব সিডনির শিক্ষক এবং এই গবেষণার সহ গবেষক মাগদা গুইলিয়ামো বিবিসিকে বলেন, ‘এই ফলাফল মিল্কিওয়ে বিষয়ে আমাদের ধারণাই পাল্টে দিয়েছে। আমরা সবসময়েই ভেবে এসেছি আমদের ছায়াপধ নিস্ক্রিয় একটি ছায়াপথ। এর কেন্দ্র একদম অনুজ্জল। কিন্তু আমরা মারাত্মক ভুল করে এসছি এতোদিন।’ এই বিস্ফোরণে দুটি আয়োনিত কোণ তৈরী হয়েছিলো। এগুলো মিল্কিওয়েকে দুইটুকরো করেছে। এর বাম পাশে তৈরী হয়েছে মেগালিনিক স্ট্রিম। এটি একটি লম্বা গ্যাসীয় পথ যা আশেপাশের বামন ছায়াপথগুলো পর্যন্ত মেঘ আকারে ছড়িয়ে আছে।
এই ঝর্ণার মতো মেঘ আমাদের থেকে ২ লাখ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত। এই মেঘ বিশালাকৃতির কৃষ্ণগহ্বরটিতে পারমাণবিক ক্রিয়াকর্মের সূচনা করে। এই মেঘগুলোর ভর আমাদের সূর্যের চেয়ে ৪০ লাখ গুন বেশি। দূর থেকে এই ফ্লেয়ারকে দেথে মনে হয় লাইটহাউজে আলো জ¦লছে। বিজ্ঞানীরা বলছেন মহাকাশ গবেষণায় এই ফ্লেয়ার ভবিষ্যতে পথপ্রদর্শকের ভুমিকা পালন করবে লাইটহাউজের মতোই। সম্পাদনা : ইকবাল খান




সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশক ঃ নাঈমুল ইসলাম খান

১৩২৭, তেজগাঁও শিল্প এলাকা (তৃতীয় তলা) ঢাকা ১২০৮, বাংলাদেশ। ( প্রগতির মোড় থেকে উত্তর দিকে)
ই- মেইল : [email protected]